১৯শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কবে মা হচ্ছেন জানালেন পরীমনি

আপডেট : আগস্ট ৫, ২০২২ ৬:৫৪ অপরাহ্ণ

17

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

ঘরে নতুন অতিথির আগমন বার্তা আরও ভালো করে বুঝতে পারছেন পরীমনি। নতুন অতিথিকে বরণ করে নিতে বাড়িতেও ভিড় বাড়ছে। শাশুড়ি মা থেকে খালা সবাই ব্যস্ত শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতিতে। ভূমিষ্ঠ হওয়ার অপেক্ষা থাকা সন্তানের জন্য চলছে কেনাকাটাও। সব মিলিয়ে বাড়িতে উৎসবমুখর পরিবেশ। আগেই অভিনেত্রী জানিয়েছেন অন্তঃসত্ত্বা হওয়ার পর থেকে এ পর্যন্ত সময়টা দারুণ উপভোগ করছেন। তাঁর ফেসবুকে ঢুঁ মারলেই সেটা ভালোভাবে বোঝা যায়। মাতৃত্বকালীন সময়টা উদ্‌যাপনের নানা ধরনের ছবিতে ভরে গেছে টাইমলাইন। ভক্তদের অপেক্ষা—কবে সুখবর দেবেন পরীমনি? জানাবেন প্রথম সন্তানের জন্মের খবর। ভক্তদের আর অপেক্ষায় না রেখে জানিয়েছেন মা হওয়ার সম্ভাব্য দিন-তারিখ।

গত মঙ্গলবার স্বামী শরীফুল রাজকে সঙ্গে নিয়ে চিকিৎসকের কাছে গিয়েছিলেন পরীমনি। চিকিৎসক জানিয়েছেন, পরী ও গর্ভের সন্তান সুস্থ আছে। সঙ্গে জানিয়েছেন বহুল প্রতীক্ষিত সেই দিন-তারিখও—২৮ আগস্ট পৃথিবীর আলো দেখতে পারে পরীমনির সন্তান।

 পরীমনি বলেন, ‘চিকিৎসক ২৮ আগস্ট সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার সম্ভাব্য ডেট দিয়েছেন। নতুন অতিথিকে বরণ করতে শাশুড়ি মা, খালাসহ অনেকেই আমার বাসায়। এর মধ্যে রাজের দুটি সিনেমা (‘পরাণ’ ও ‘হাওয়া’) মুক্তি পেয়েছে। সিনেমা নিয়ে প্রচারণার ব্যস্ততার মধ্যেও আমাকে সময় দিচ্ছে। সবাই আমাকে নিয়ে ব্যস্ত। খুবই সুন্দর সময় পার করছি।’

সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার সম্ভাব্য দিন যত কাছে আসছে, নতুন অতিথির আগমনী বার্তা তত ভালো করে টের পাচ্ছেন পরীমনি। তিনি বলেন, ‘এখন তো সন্তানের আগমনী বার্তা স্পষ্টই বুঝতে পারি। মনে মনে সারাক্ষণ ওর সঙ্গে খেলি। এমন সুখের দিনগুলো যদি ফ্রেমে বন্দী করে রাখতে পারতাম! কয়েকটি দিনও দেরি সহ্য হচ্ছে না।’

ছেলে না মেয়ে হবে, তা এখনো জানেন না পরীমনি ও রাজ। চিকিৎসকের মাধ্যমে জানার সুযোগ থাকলেও কৌতূহল দেখাননি তারকা দম্পতি। চমক হিসেবেই রাখতে চেয়েছেন। এ প্রসঙ্গে পরী বলেন, ‘যখন সন্তান পৃথিবীতে আসবে, তখন জানাটাই আনন্দের হবে। তা ছাড়া এ বিষয় নিয়ে সবার কৌতূহল আছে। ছেলে হোক, মেয়ে হোক সন্তান সুস্থভাবে পৃথিবীতে আসবে, এটাই চাওয়া।’

সন্তান ভূমিষ্ঠ হওয়ার যা লাগবে, সব কেনাকাটা শুরু করেছেন পরীমনি ও রাজ। পরীমনি বলেন, ‘কয়েক দিন ধরে আমি ও রাজ মার্কেটে গিয়ে সন্তানের জন্য জিনিস কিনছি। জামাকাপড় এমনভাবে কিনেছি ছেলে হলেও পরতে পারবে, মেয়ে হলেও পারবে। যে এখনো পৃথিবীতে আসেনি, দুজন তার জন্য ঘুরে ঘুরে শপিং করছি, কী যে মজা লাগছে!’

সূত্র: প্রথম আলো




স্মৃতি ও স্মরণ

ছবি