২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কলেরা টিকার দ্বিতীয় ডোজ আজ থেকে

আপডেট : আগস্ট ৩, ২০২২ ২:৩৩ অপরাহ্ণ

32

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

আজ বুধবার থেকে রাজধানীর পাঁচ এলাকায় কলেরা-ডায়রিয়া টিকার দ্বিতীয় ডোজ খাওয়ানো কর্মসূচি শুরু হচ্ছে। এলাকা পাঁচটি হলো যাত্রাবাড়ী, সবুজবাগ, দক্ষিণখান, মিরপুর ও মোহাম্মদপুর। গত ২৬ জুন থেকে ২ জুলাই অনুষ্ঠিত কলেরা টিকাদান কর্মসূচিতে যে ২৩ লাখ ৬৫ হাজার ৫৮৫ জন প্রথম ডোজ টিকা খেয়েছেন, তারাই দ্বিতীয় ডোজ টিকা পাবেন।

টিকা খাওয়ানো হবে ১০ আগস্ট পর্যন্ত। সাপ্তাহিক ও সরকারি ছুটির কারণে মাঝখানের দুই দিন ৫ আগস্ট শুক্রবার ও ৯ আগস্ট আশুরার দিন এই কর্মসূচি বন্ধ থাকবে। বাকি দিনগুলোতে এই পাঁচ এলাকার ৭০০ নিয়মিত ও অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্রে সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পযন্ত টিকা পাবে মানুষ। টিকাগ্রহীতাদের অবশ্যই প্রথম ডোজের টিকা কার্ড সঙ্গে আনতে হবে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তত্ত্বাবধানে আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র বাংলাদেশ (আইসিডিডিআর,বি) এই টিকা খাওয়াবে। কলেরা প্রতিরোধে এই টিকা খাওয়ার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে প্রতিষ্ঠান দুটি।

এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার পরিচালক অধ্যাপক ডা. নাজমুল ইসলাম জানান, ইতিমধ্যেই যারা এই টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন, কেবল তারাই দ্বিতীয় ডোজ পাবেন। তবে গর্ভবতী নারী এবং যারা বিগত ১৪ দিনের মধ্যে অন্য কোনো টিকা গ্রহণ করেছেন, তারা টিকা নিতে পারবেন না। আশা করব যারা প্রথম ডোজ কলেরা টিকা নিয়েছেন তারা অবশ্যই দ্বিতীয় ডোজ টিকা গ্রহণ করে নিজেদের এ রোগ থেকে সুরক্ষা করবেন। এই টিকা নেওয়ার ১৪ দিনের মধ্যে অন্য কোনো টিকা নেওয়া যাবে না।   দেশে এ বছর ব্যাপকহারে ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব দেখা দেওয়ায় সরকার মুখে কলেরা-ডায়রিয়ার টিকা খাওয়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়। মার্চের মাঝামাঝি সময় থেকে ঢাকায় ডায়রিয়ার প্রাদুর্ভাব বেড়ে যায়। এ সময় রেকর্ডসংখ্যক রোগী ভর্তি হয় ঢাকার আইসিডিডিআর,বির কলেরা হাসপাতালে। গত এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহ পর্যন্ত প্রতিদিন গড়ে প্রায় ১ হাজার ৩০০ রোগী ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে হাসপাতালের ইতিহাসে সর্বোচ্চ রেকর্ডসংখ্যক রোগী ভর্তি হন ৪ এপ্রিল ১ হাজার ৩৮৩, যা ঘণ্টায় ছিল ৫৮ জন। গত ৯ এপ্রিল থেকে রোগী কিছুটা কমতে শুরু করে এবং দৈনিক ১ হাজার ২০০-এর ঘরে আসে। পরের দুদিন আরও কমে ১ হাজার ১০০-এর ঘরে পৌঁছে। পরে ধীরে ধীরে ডায়রিয়ার প্রকোপ কমে আসে।

বিশেষজ্ঞরা জানান, মুখে দুই ডোজের কলেরা-ডায়রিয়ার টিকা খেলে ৮৫ শতাংশ ক্ষেত্রে এটি কলেরার বিরুদ্ধে কার্যকর প্রতিরোধ গড়ে তোলে। টিকা খাওয়ার প্রথম ছয় মাসে এটি থাকে সবচেয়ে বেশি কার্যকর। এরপর এর কার্যকারিতা কিছুটা হ্রাস পায়। সাধারণত দু-তিন বছর পর্যন্ত এই টিকা কলেরার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ দেয়াল গড়ে তুলতে সক্ষম।

সূত্র: দেশ রূপান্তর




স্মৃতি ও স্মরণ

ছবি