৮ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ২৩শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সাত দিনের জন্য জাফলংয়ে প্রবেশের ফি মওকুফ, আরও তিনজন আটক

আপডেট : মে ৫, ২০২২ ৮:৪৪ অপরাহ্ণ

74

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

সিলেটের পর্যটনকেন্দ্র জাফলংয়ে প্রবেশের ফি আদায় নিয়ে পর্যটকদের ওপর হামলার ঘটনায় মোট পাঁচ স্বেচ্ছাসেবককে আটক করেছে পুলিশ। এর আগে প্রাথমিকভাবে দুজনকে আটক করা হয়েছিল।

আটক স্বেচ্ছাসেবকেরা হলেন সেলিম মিয়া (২১), লক্ষ্মণ চন্দ্র দাস (২২), সুহেল রানা (২২), নাজিম উদ্দিন (২৩) ও জয়নাল আবেদীন (২৩)। বৃহস্পতিবার বিকেলে তাঁদের আটক করা হয় বলে প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন সিলেটের গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম নজরুল ইসলাম।

আগামী সাত দিন জাফলংয়ে বেড়াতে আসা পর্যটকদের কাছে কোনো ধরনের প্রবেশ ফি আদায় করা হবে না বলে জানিয়েছেন সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান। ফলে আজ বৃহস্পতিবার থেকে আগামী সাত দিন জাফলংয়ে প্রবেশ উন্মুক্ত থাকবে।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা দুইটার দিকে জাফলংয়ে উপজেলা প্রশাসনের টিকিট কাউন্টারে পর্যটকদের একটি দলকে বেধড়ক মারধর করেন স্বেচ্ছাসেবীরা। এতে ছয় পর্যটক আহত হন। তাঁদের স্থানীয়ভাবে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

পর্যটকদের মারধরের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ে। ওই ভিডিওটিতে দেখা গেছে, স্বেচ্ছাসেবী কয়েকজন তরুণ পর্যটকদের লাঠি দিয়ে আঘাত করছেন। এ সময় এক নারী ও কয়েকজন তরুণী স্বেচ্ছাসেবীদের নিবৃত্ত করার চেষ্টা করেন। এরপরও তাঁরা থামেননি। ভিডিওটিতে নারীদের আর্তচিৎকার করতে শোনা যায়।

স্থানীয় একটি সূত্রে জানা গেছে, একটি পরিবার জাফলংয়ে বেড়াতে আসে। বেলা দুইটার দিকে জাফলংয়ে প্রবেশকালে উপজেলা প্রশাসনের ফি আদায়কালে পর্যটকদের সঙ্গে স্বেচ্ছাসেবকদের কথা–কাটাকাটির ঘটনা ঘটে। এর একপর্যায়ে স্বেচ্ছাসেবকেরা হামলা করেন।

খবর পেয়ে উপজেলা প্রশাসন, জাফলং সাব জোনের ট্যুরিস্ট পুলিশের পরিদর্শক ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করেন। সেই সঙ্গে স্বেচ্ছাসেবকের দায়িত্বে নিয়োজিত দুই যুবককে আটক করে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, হামলার শিকার পর্যটকেরা ঢাকা থেকে সিলেটে বেড়াতে এসেছিলেন। এ সময় জাফলংয়ের ভ্রমণের টিকিট না কেটে জিরো পয়েন্টের দিকে নেমে যান। একপর্যায়ে টিকিট কাউন্টারে থাকা স্বেচ্ছাসেবকেরা ওই পর্যটকদের ডেকে নিলে এ নিয়ে কথা–কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে পর্যটকদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম নজরুল ইসলাম বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত পর্যটকদের ওপর হামলার অভিযোগে পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে। তাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়েরের পর গ্রেপ্তার দেখানো হবে।
মারধরে জড়িত থাকার অভিযোগে স্বেচ্ছাসেবকের দায়িত্ব থাকা পাঁচজনকে বরখাস্ত করা হয়েছে। গোয়াইনঘাট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাহমিলুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, কেন হামলার ঘটনা ঘটেছে, সেটি এখনো পরিষ্কারভাবে জানা যায়নি। তবে পর্যটকদের ওপর হামলার ঘটনা কাম্য নয়। এ ব্যাপারে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

এদিকে আগামী সাত দিন জাফলংয়ে প্রবেশের ফি আদায় না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা প্রশাসন। জেলা প্রশাসক মো. মজিবর রহমান বলেন, ঈদ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার থেকে আগামী সাত দিন পর্যটকদের কাছ থেকে কোনো ধরনের টিকিট বাবদ টাকা আদায় করা হবে না। জফলং উন্মুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে।

বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকেও নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া বৃহস্পতিবার দুপুরে পর্যটকদের ওপর হামলার বিষয়ে প্রয়োজনীয় আইনি ব্যবস্থা এবং ঘটনার সঠিক তথ্য জানাতে ইউএনওকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

সূত্রঃ প্রথম আলো




স্মৃতি ও স্মরণ

ছবি