২৪শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১০ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রাজ্জাকের ব্লেজার, চশমা ও ক্যাপ মিউজিয়ামে

আপডেট : জানুয়ারি ২৪, ২০২২ ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ

39

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

নায়করাজ রাজ্জাকের ৮০তম জন্মদিন আজ। করোনার বিধিনিষেধের কারণে বড় ধরনের কোনো আয়োজন ছিল না। এফডিসিতে শিল্পীরা ছোট পরিসরে বরেণ্য এ অভিনেতার জন্মদিন উদ্‌যাপন করে। তবে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য আয়োজন ছিল বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভে। পরিবারের পক্ষে নায়করাজের ব্যবহৃত জিনিসপত্র হস্তান্তর করা হয় আর্কাইভের মিউজিয়ামে।

রোববার অভিনেতা সম্রাট রাজপরিবারের পক্ষ থেকে প্রয়াত রাজ্জাকের ব্যবহৃত ব্লেজার, চশমা, পাঞ্জাবি ও ক্যাপ বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভের মিউজিয়ামের জন্য হস্তান্তর করেন। এসব সামগ্রী গ্রহণ করেন বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভের মহাপরিচালক নিজামূল কবীর। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভের পরিচালক মোফাকখারুল ইকবাল, সহকারী পরিচালক মনিরুজ্জামান, ফিল্ম অফিসার ফখরুল আলম, গবেষক ও লেখক মীর শামসুল আলম প্রমুখ।

নায়করাজের ছোট ছেলে সম্রাট বলেন, ‘আব্বুর জন্মদিন মানেই ছিল মহা আয়োজন।

এখন শুধুই শূন্যতা। করোনার কারণে পারিবারিকভাবে কোনো আয়োজন করা হচ্ছে না। তবে পরিবারের পক্ষ থেকে ফিল্ম আর্কাইভের মিউজিয়ামে রাখার জন্য আব্বুর ব্যবহৃত কিছু সামগ্রী দিয়েছি। আর্কাইভের এই উদ্যোগ বেশ প্রশংসনীয়।’

২০২০ সালে বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভ ভবনের দ্বিতীয় তলায় ফিল্ম মিউজিয়াম স্থাপন করা হয়। যেখানে এরই মধ্যে স্থান পেয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশন, বাংলাদেশ শর্ট ফিল্ম ফোরাম, শ্রুতি রেকর্ডিং স্টুডিও, চিত্রগ্রাহক এম এ সামাদ, সালাউদ্দিন, অভিনেত্রী সুলতানা জামান, চলচ্চিত্র পরিচালক চাষী নজরুল ইসলাম, অভিনেতা আজিম, অভিনেত্রী সুজাতাসহ বিভিন্ন চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্বের ব্যবহৃত দ্রব্যাদি, যন্ত্রপাতি।

১৯৬৬ সালে ‘বেহুলা’ চলচ্চিত্রে নায়ক হিসেবে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে ঢাকাই ছবিতে দর্শকনন্দিত হন কিংবদন্তি এ অভিনেতা। নায়করাজ রাজ্জাক প্রথম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন ‘কি যে করি’ ছবিতে অভিনয় করে। পাঁচবার তিনি জাতীয় সম্মাননা পান। ২০১৩ সালের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে তিনি আজীবন সম্মাননা অর্জন করেন। এ ছাড়া বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি (বাচসাস) পুরস্কার পেয়েছেন অসংখ্যবার।

বর্তমান সময়ে চলচ্চিত্রে খুব কমই অভিনয় করছেন নায়করাজ রাজ্জাক। শুধু নায়ক হিসেবেই নয়, পরিচালক হিসেবেও বেশ সফল। ‘আয়না কাহিনী’ ছবিটি নির্মাণ করেন রাজ্জাক। নায়ক হিসেবে নায়করাজ প্রথম অভিনয় করেন জহির রায়হান পরিচালিত ‘বেহুলা’ ছবিতে। এতে তাঁর বিপরীতে ছিলেন সুচন্দা।

‘অবুঝ মন’, ‘আলোর মিছিল’ ‘ছুটির ঘণ্টা’, ‘রংবাজ’, ‘বাবা কেন চাকর’, ‘নীল আকাশের নিচে’, ‘জীবন থেকে নেয়া’ ‘পিচঢালা পথ’, ‘অশিক্ষিত’, ‘বড় ভালো লোক ছিল’সহ অসংখ্য ছবিতে অভিনয় করা রাজ্জাক সর্বশেষ অভিনয় করেছেন ছেলে বাপ্পারাজ পরিচালিত ‘কার্তুজ’ ছবিতে।

সূত্র: প্রথম আলো




স্মৃতি ও স্মরণ

ছবি