৩রা ডিসেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

শামির পাশে দাঁড়ালেন সাবেক ভারতীয় ক্রিকেটাররা

আপডেট : অক্টোবর ২৬, ২০২১ ১২:৫৮ অপরাহ্ণ

19

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শুরুটা ভালো হয়নি ভারতের। গত রোববার নিজেদের প্রথম ম্যাচে পাকিস্তানের কাছে ১০ উইকেটে হেরেছে ভারত। বিশ্বমঞ্চে পাকিস্তানের কাছে এর আগে কখনো না হারার রেকর্ডটা ১৩তম ম্যাচে এসে থেমে গেল দলটির।

স্বাভাবিকভাবেই ভারতবাসী এ হারকে ভালোভাবে নেননি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন তাঁরা। প্রায় সবাই আক্রমণ করেছেন ভালো না করা ক্রিকেটারদের। তবে ডানহাতি ফাস্ট বোলার মোহাম্মদ শামিকেই সবচেয়ে বেশি হেনস্তা করা হয়েছে।

পাকিস্তানের বিপক্ষে শামি ভালো করেননি। দলের সবচেয়ে খরচে বোলিং করেছেন তিনি। দলের কেউই উইকেট পাননি। তবে শামির মতো রান খরচ করেননি অন্য কেউ। ৩.৫ ওভার বোলিং করে দিয়েছেন ৪৩ রান। শেষ তিন ওভারে পাকিস্তানের দরকার ছিল ১৭ রান। শামি বোলিং করতে এসে প্রথম বলেই মোহাম্মদ রিজওয়ানের কাছে ছক্কা হজম করেন। পরের দুই বলে চার খেয়েছেন। ৫ বলেই ১৭ রান দেন শামি। এটা মেনে নিতে পারেননি অনেক ভারতীয়ই।

অন্য ক্রিকেটারদেরও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নিগ্রহের শিকার হতে হয়েছে। তবে শামির ক্ষেত্রে সেটা বাড়াবাড়িতে রূপ নিয়েছে। তাঁর ধর্মের কারণে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শামিকে ‘পাকিস্তানি’সহ আরও বাজে ভাষায় গালি দিয়েছেন ভারতীয় অনেক সমর্থক। এমন সময়ে শামির পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন শচীন টেন্ডুলকার, বীরেন্দর শেবাগসহ ভারতের সাবেক ও বর্তমান খেলোয়াড়েরা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সরব হয়েছেন তাঁরা।

এক টুইটের মাধ্যমে শামির প্রতি সহমর্মিতা প্রকাশ করেন কিংবদন্তী ব্যাটসম্যান শচীন টেন্ডুলকার, ‘আমরা যখন ভারতের ক্রিকেট দলকে সাপোর্ট করি, তখন আমরা দলের এগারো জনকেই সাপোর্ট করি। মোহাম্মদ শামি খুবই নিবেদিত এবং বিশ্বমানের একজন বোলার। যেকোনো খেলোয়াড়ের মতো সেও মাঠে একটা বাজে দিন কাটিয়েছে। আমি শামি এবং ভারত দলের পাশে আছি।’

মোহাম্মদ শামিকে এভাবে সাইবার বুলিংয়ের শিকার হতে দেখে কষ্ট পেয়েছেন সাবেক ভারতীয় ব্যাটসম্যান বীরেন্দর শেবাগও, ‘মোহাম্মদ শামির ওপর অনলাইনে এমন হামলা খুবই ন্যক্কারজনক এবং আমরা সবাই তাঁর পাশে আছি। সে একজন চ্যাম্পিয়ন এবং যাঁরা ভারতের টুপি পরে মাঠে নামেন, তাঁরা সবাই হৃদয়ে ওই অনলাইন আক্রমণকারীদের তুলনায় ভারতকে অনেক বেশি ধারণ করেন। তোমার সঙ্গেই আছি শামি। পরের ম্যাচে দেখিয়ে দিও তোমার ক্ষমতা!’

সাবেক বাঁহাতি পেসার ইরফান পাঠান ভারতীয় সমর্থকদের এমন আচরণে বিস্ময় প্রকাশ করেন, ‘আমি নিজে এমন অনেক ভারত-পাকিস্তান ম্যাচে খেলেছি, যেগুলোয় আমরা জিততে পারিনি। কিন্তু তখন আমাকে কেউ পাকিস্তান চলে যেতে বলতো না। আমি মাত্র কয়েক বছর আগের কথাই বলছি। এটা বন্ধ হওয়া জরুরি।’

শুধু যে সাবেক খেলোয়াড়রা শামির হয়ে কথা বলেছেন, তা নয়। বর্তমান খেলোয়াড়েরাও শামির কাঁধে কাঁধ মিলিয়েছেন। এ বিশ্বকাপের ভারতীয় দল থেকে বাদ পড়ে যাওয়া লেগ স্পিনার যুজবেন্দ্র চাহাল লিখেছেন, ‘আমরা তোমাকে নিয়ে খুবই গর্বিত, শামি ভাইয়া।’

ভারতের হয়ে ২০০৭ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ এবং ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপ জেতা অফ স্পিনার হরভজন সিং বলেছেন, ‘আমরা তোমাকে ভালোবাসি, শামি।’ শামির প্রতি এমন আক্রমণে দুঃখ প্রকাশ করেছেন সাবেক বাঁহাতি পেসার আরপি সিংও, ‘শামি ভারতীয় জাতীয় দলের একজন ক্রিকেটার এবং আমরা ওকে নিয়ে গর্বিত। পাকিস্তানের বিপক্ষে হারের পর তাঁকে লক্ষ্য করে মানুষের এমন আক্রমণ করাটা খুবই দুঃখজনক।’

সূত্র: প্রথম আলো