২৭শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বার্সা কোচের প্রশ্ন, ‘এই দল নিয়ে কীভাবে টিকি–টাকা খেলি!’

আপডেট : সেপ্টেম্বর ২১, ২০২১ ৫:৪৬ অপরাহ্ণ

18

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

গ্রানাদার বিপক্ষে কাল বার্সেলোনা নেমেছিল রোনাল্ড কোমানের ‘চাকরি বাঁচানো’ ম্যাচে। কিন্তু কোমানের খুব একটা স্বস্তি যে মিলেছে, তা মোটেও বলা যাবে না। নিজেদের মাঠ ক্যাম্প ন্যুতে শেষ মুহূর্তের গোলে কোনোরকমে ১-১ গোলের ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে বার্সা। কালকের পর থেকে প্রশ্নটা যেন আরও বেশি চাউর—বার্সেলোনা কোচ নিজের চাকরি বাঁচাতে পারবেন তো!

কোমান নিজে অবশ্য এসব নিয়ে কথা বলতে চাইছেন না। ম্যাচের পর এমন প্রশ্নের উত্তরে কিছুটা শ্লেষের সঙ্গেই বলেছেন, ‘আমি এ বিষয় নিয়ে কথাই বলতে চাইছি না।’ কিন্তু কী বিষয় নিয়েই–বা কথা বলবেন বার্সার ডাচ্‌ কোচ? বলার মতো যে কিছুই হচ্ছে না। আর সেটির দায় দলের খেলোয়াড়দের মানের কমতির ওপরই চাপাচ্ছেন ডাচ্‌ কোচ।

প্রতিটি ম্যাচের আগে-পরে কোমানের সংবাদ সম্মেলনগুলো হয়ে উঠছে বড্ড বেশি ক্লিশে। সেই একই কথা। মেসি না থাকায় কী ক্ষতি হয়েছে বার্সার, মেসিহীন বার্সা কীভাবে ঘুরে দাঁড়াতে পারে…ম্যাচের পর অবধারিতভাবেই থাকছে আত্মসমালোচনাও। কাল গ্রানাদার মতো দলের বিপক্ষে জয় তুলে নিতে ব্যর্থ হও

কিছুদিন আগেই চ্যাম্পিয়নস লিগে বায়ার্ন মিউনিখের কাছে ৩-০ গোলে হার, কাল গ্রানাদার বিপক্ষে কৌশল বদলেও হারের সমান ফল। কোমানের অবস্থা যেন ছেড়ে দে মা কেঁদে বাঁচি। কী করলে কী হবে, সেটিই যেন মাথায় আসছে না তাঁর। সে কারণেই আত্মসমালোচনাই হয়ে উঠেছে কোমানের ঢাল।

সেই ঢাল কালও ব্যবহার করলেন তিনি, ‘এই বার্সেলোনা আট বছর আগের বার্সেলোনা নয়। আমরা বার্সেলোনার মতোই খেলেছি, কিন্তু আমাদের সেই গতি কোথায়! কুতিনিও প্রতিপক্ষ বক্সের ভেতরে ঢুকতে পারছিল না, দেমিরেরও একই অবস্থা। তবে আমি মনে করি, ফাতি আর দেম্বেলে ফিট হয়ে ফিরলে পরিস্থিতি কিছুটা পাল্টাবে।’

গ্রানাদার বিপক্ষে ড্রয়ের পর ৪ ম্যাচে দুই জয় ও দুই ড্রয়ে ৮ পয়েন্ট হলো বার্সার। লিগের পয়েন্ট তালিকার ৭ নম্বরে আছে কোমানের দল। শীর্ষে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট ৫ ম্যাচে ১৩।

কাল সে কারণেই কিছুটা কৌশল বদলে দলকে খেলিয়েছেন কোমান। সেটির পক্ষে ম্যাচের পর থাকল তাঁর সাফাই, ‘আমাদের খেলোয়াড় তালিকাটা একবার দয়া করে দেখুন। আমরা কী করব! এ দলকে নিয়ে “টিকি-টাকা” ফুটবল খেলব? মাঠে যখন প্রতিপক্ষ আপনাকে জায়গা দিচ্ছে না, আপনি গতি দিয়ে জায়গা বের করতে পারছেন না, তখন “টিকি-টাকা” খেলব কীভাবে!’

দলের জয়ের জন্য সম্ভাব্য সবকিছু করেও নিজেকে যেন অসহায়ই দাবি করলেন কোমান, ‘আমাদের যা করার দরকার ছিল, সেটিই করেছি আমরা। আমরা কিছুটা অন্য কৌশলে ম্যাচ জয়ের চেষ্টা চালিয়েছি। আমাদের গতিময় খেলোয়াড় নেই। আমরা এ নিয়ে আলোচনা করে যাচ্ছি। আমি এর বেশি বলতে পারব না। ব্যাপারটা এমন দাঁড়াচ্ছে যেন আমি সবকিছুতেই অজুহাত খুঁজে বেড়াচ্ছি।’

এক সময়ের ডাচ্‌ তারকা ফুটবলার কোমান সোজাসাপ্টাই জানিয়ে দিয়েছেন, চাকরি-টাকরি নিয়ে তিনি ভাবেন না, ‘আমি কেবল খেলাটা নিয়ে ভাবি। কীভাবে উন্নতি করব আমরা, সেটা ভাবি, দলকে নিয়ে ভাবি। বাকি অন্য কিছু আমার মাথায় নেই। আমি জানি ফলাফল একটা গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। তবে আমি আমার ভবিষ্যৎ নিয়ে দুশ্চিন্তাগ্রস্ত নই। ব্যাপারটা ক্লাব সভাপতির হাতে। তিনিই সিদ্ধান্ত নেবেন, কী হবে।’

এখনো আশাবাদী হওয়ার যথেষ্ট কারণ দেখেন কোমান। আশা দেখেন মৌসুমের শুরুর ম্যাচগুলোর কথা মনে করেই, ‘আমি বিশ্বাস করি, আমরা আবারও জেতা শুরু করব। মৌসুমের শুরুতে যেমনটা হয়েছিল। ৩ ম্যাচে ৭ পয়েন্ট তুলে নিয়েছিলাম। এখনো তো অনেক খেলা বাকি আছে।’

গ্রানাদার বিপক্ষে ড্রয়ের পর ৪ ম্যাচে দুই জয় ও দুই ড্রয়ে ৮ পয়েন্ট হলো বার্সার। লিগের পয়েন্ট তালিকার ৭ নম্বরে আছে কোমানের দল। শীর্ষে থাকা রিয়াল মাদ্রিদের পয়েন্ট ৫ ম্যাচে ১৩। ২ নম্বরে গত মৌসুমের চ্যাম্পিয়ন আতলেতিকো মাদ্রিদ, তাদের পয়েন্ট ৫ ম্যাচে ১১।

সূত্র: প্রথম আলো




ছবি