৩রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

প্রতিবাদের মুখে নাটক প্রত্যাহার, ক্ষমা চাইলেন শিল্পী ও কলাকুশলীরা

আপডেট : জুলাই ২৬, ২০২১ ২:২০ পূর্বাহ্ণ

271

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

প্রতিবাদের মুখে ঘটনা সত্য নামের একটি নাটক ইউটিউব থেকে প্রত্যাহার করে নিল নির্মাতা ও প্রযোজক গোষ্ঠী। অভিযোগ রয়েছে, নাটকটিতে বিশেষ শিশুদের বিষয়ে মিথ্যা ও ভুল তথ্য দেওয়া হয়েছে। অনভিপ্রেত এ ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন নাটকটির পরিচালক, শিল্পী ও কলাকুশলীরা।

রুবেল হাসান পরিচালিত ও আফরান নিশো-মেহজাবীন চৌধুরী অভিনীত ঘটনা সত্য নাটকটি প্রথমে একটি টেলিভিশন চ্যানেলে দেখানো হয়। এ নাটকে নিশো একজন গাড়িচালক আর মেহজাবীন গৃহপরিচারিকা। নাটকটির শেষ অংশের একটি বার্তা নিয়েই সমালোচনা শুরু হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, প্রতিবন্ধী শিশু পাপের ফল। বিষয়টি নিয়ে একাধিক সংগঠন থেকে প্রতিবাদ জানানো হয়। এ ছাড়া নাটককেন্দ্রিক বিভিন্ন গ্রুপেও সমালোচনা হচ্ছে।

একজন অটিস্টিক সন্তানের মা এবং পিএফডিএ-ভোকেশনাল ট্রেনিং সেন্টারের চেয়ারম্যান সাজিদা রহমান ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন মানুষদের পরিবার এবং পিতা-মাতাকে মানসিক আঘাত করে এবং প্রতিবন্ধিতা সম্পর্কে যে ধরনের নেতিবাচক বক্তব্য উপস্থাপন করা হয়েছে তা অত্যন্ত দুঃখজনক, মানহানিকর। অনেক শিক্ষিত মানুষের মধ্যেও বদ্ধমূল ধারণা আছে, যেকোনো পাপের ফলে বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুর জন্ম হয়। নাটকে যখন এমন বার্তা প্রচার করা হয়, তখন তা আরও প্রতিষ্ঠা পায়। একটা নাটক লেখা থেকে শুরু করে প্রচার পর্যন্ত অনেকগুলো ধাপ পার করতে হয়েছে, এমন সংবেদনশীল বিষয়টি কারও নজরে একবারও এল না!’

নাটকটির নির্মাতা রুবেল হাসান প্রথম আলোকে বলেন, ‘এটা আমাদের ভুল। যেসব বাবা-মায়েরা আমাদের এই ভুলে কষ্ট পেয়েছেন, তাঁদের সবার কাছে ক্ষমা চাইছি।’ নাটকের অন্যতম অভিনয়শিল্পী মেহজাবীনও বিষয়টি নিয়ে লজ্জিত ও ক্ষমাপ্রার্থী। তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমি খুবই দুঃখিত, লজ্জিত ও ক্ষমাপ্রার্থী। এটা আমাদের অনেক বড় একটা ভুল। কোনো স্পেশাল চাইল্ড বা তাদের বাবা-মাকে আঘাত করার মানসিকতা আমাদের মোটেও ছিল না। গতকাল নাটকটি প্রচারের পর থেকে বিষয়টি টের পেয়ে খুবই খারাপ লাগছে। অনেকে এসএমএস করেছেন। এরপর আমি ঘটনাটা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানকে জানাই। পুরো টিম মিলে ভুল বুঝতে পারি। এটাকে একটা শিক্ষা হিসেবে নিচ্ছি। যদিও সংলাপটা আমাদের কারও মুখ থেকে যায়নি। এ ধরনের কোনো ভুল ভবিষ্যতে যাতে না হয়, সেদিকটায় খেয়াল রাখব। আমরা নিজেদের অজান্তেই বাবা-মায়েদের কষ্ট দিয়েছি। পুরো টিমের পক্ষ থেকে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি।’

নাটকের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান সিএমভির পক্ষ থেকে ফেসবুক পেজে দেওয়া পোস্টে জানানো হয়েছে, ‘ঘটনা সত্য নাটকের নাট্যকার, পরিচালক, প্রযোজক, শিল্পী ও কলাকুশলীদের পক্ষ থেকে আমরা গভীরভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি। আপনাদের অনেকেই জানিয়েছেন, এ নাটকের মাধ্যমে ভুল বার্তা দেওয়া হয়েছে। অভিযোগটির সাথে আমরা সহমত পোষণ করছি। বিষয়টি একেবারেই অনাকাঙ্ক্ষিত। প্রথম বার্তা পাবার পরপরই আমরা উপলব্ধি করি, অসাবধানতাবশত নাটকে আমরা ভুল একটি বার্তা পৌঁছে দিয়েছিলাম। সঙ্গে সঙ্গেই আমরা নাটকটি ইউটিউব থেকে সরিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত নিই।’

সূত্র – প্রথম আলো




স্মৃতি ও স্মরণ

ছবি