৩রা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ১৮ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গুরুতর অসুস্থ সমরেশ মজুমদার, হাসপাতালে ভর্তি

আপডেট : জুন ১২, ২০২১ ১০:৫২ পূর্বাহ্ণ

124

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের সাহিত্যিক সমরেশ মজুমদারকে। কলকাতার এক বেসরকারি হাসপাতালে রয়েছেন বর্ষীয়ান এ সাহিত্যিক।

শুক্রবার নিঃশ্বাস নিতে অসুবিধা হচ্ছিল সমরেশের। এরপর পরিবারের তরফে কোনোরকম ঝুঁকি না নিয়েই হাসপাতালে ভর্তির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

হাসপাতালের বরাত দিয়ে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, শ্বাসনালিতে গভীর সংক্রমণ রয়েছে সমরেশ মজুমদারের। তার জেরেই শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল। ইতিমধ্যেই সাহিত্যিকের চেস্ট এক্স-রে, সিটি স্ক্যান-সহ একাধিক রক্ত পরীক্ষা করা হচ্ছে। পাশাপাশি তার করোনা পরীক্ষাও করা হয়েছে।

১০-১২ বছর ধরে সিওপিডি’র সমস্যায় ভুগছেন সমরেশ। জানা গেছে, তাকে আইসিইউতে রাখা হয়েছে।

এর আগে ২০২১ সালে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন লেখক, সেই সময় ভেন্টিলেশনও রাখা হয়েছিল তাকে।

৭৯ বছর বয়সী সমরেশ মজুমদার দুই বাংলার পাঠককে দশকের পর দশক করে বিমুগ্ধ করে রেখেছেন তার লেখনীতে। ১৯৭৬ সালে দেশ পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছিল তার প্রথম উপন্যাস ‘দৌড়’। সেই যাত্রা শুরু, এরপর একে একে সাতকাহন, তেরো পার্বণ, স্বপ্নের বাজার, উজান গঙ্গা, ভিক্টোরিয়ার বাগান, আট কুঠুরি নয় দরজা, অনুরাগ-এর মতো উপন্যাস বাঙালিকে উপহার দিয়েছেন তিনি। তবে নিঃসন্দেহে তার সেরা সৃষ্টি ‘উত্তরাধিকার, কালবেলা, কালপুরুষ’ ট্রিলজি।

লেখনীর গণ্ডি শুধু গল্প বা উপন্যাসের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকেনি। ছোটগল্প, ভ্রমণকাহিনি থেকে গোয়েন্দা কাহিনি, কিশোর উপন্যাস রচনায় সমরেশের জুড়ি মেলা ভার। তার ঝুলিতে পুরস্কারের সংখ্যাও অগণিত। ১৯৮২ সালে আনন্দ পুরস্কার, ১৯৮৪ সালে সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কার, বঙ্কিম পুরস্কার এবং আইওয়াইএমএস পুরস্কার জয় করেছেন সমরেশ মজুমদার।

ঢাকার সঙ্গে এ লেখকের সম্পর্ক বেশ নিবিড়। ২০১৯ সালে শেষবার ঢাকায় আসেন তিনি, অংশ নেন একাধিক অনুষ্ঠানে।

সূত্র: দেশ রূপান্তর




স্মৃতি ও স্মরণ

ছবি