১৯শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

২৪ হাজার বছর ধরে টিকে থাকা প্রাণী

আপডেট : জুন ৯, ২০২১ ১:০৩ অপরাহ্ণ

132

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

উত্তর মেরুর জমাট বাঁধা বরফে ২৪ হাজার বছর ধরে ঘুমিয়ে থাকার পর আবার জেগে উঠেছে একটি আণুবীক্ষণিক প্রাণী। এর নাম ডেলোইড রোটিফার্স। এ প্রাণী মূলত জলীয় পরিবেশে বাস করে এবং এর বেঁচে থাকার অবিশ্বাস্য ক্ষমতা আছে। রাশিয়ার বিজ্ঞানীরা সার্বিয়ার পার্মাফ্রস্ট (ভূগর্ভস্থ হিমায়িত অঞ্চল) খনন করে হিমায়িত মাটির কোর থেকে এই প্রাণীর সন্ধান পান। সিএনএনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

রাশিয়ার সয়েল ক্রায়োলজি ল্যাবরেটরির গবেষক স্টাস মালাভিন বলেন, আজকের হিসাবে প্রমাণিত হয় যে বহুকোষীয় প্রাণী কয়েক হাজার বছর ক্রিপ্টোবায়োসিস সহ্য করতে পারে। ক্রিপ্টোবায়োসিস হচ্ছে প্রায় পুরোপুরি মেটাবলিজম (বিপাক) বন্ধ হয়ে যাওয়ার দশা।

এই গবেষকদের আগের গবেষণায় দেখা গিয়েছিল, রোটিফার্স হিমায়িত অবস্থায় ১০ বছরের বেশি সময় টিকে থাকতে পারে। নতুন গবেষণায় রাশিয়ার গবেষকেরা রেডিওকার্বন ডেটিং পদ্ধতি ব্যবহার করে দেখেছেন, পার্মাফ্রস্ট থেকে বের করে আনা আণুবীক্ষণিক প্রাণীগুলো ২৪ হাজার বছরের পুরোনো।

গত সোমবার গবেষণাসংক্রান্ত নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে কারেন্ট বায়োলজি সাময়িকীতে।

অবশ্য পুরোপুরি হিমায়িত আবাসস্থল থেকে কোনো প্রাচীন প্রাণীর সন্ধান পাওয়ার ঘটনা এটাই প্রথম নয়। এর আগে হাজার বছরের পুরোনো নমুনা থেকে অ্যান্টার্কটিক মস সফলভাবে জন্মানো গেছে। এ ছাড়া সার্বিয়া থেকে ৩০ হাজার বছরের পুরোনো নেমাটোড পুনরুদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে।

মালাভিন এক বিবৃতিতে বলেছেন, গবেষণায় দেখা গেছে, বহুকোষী জীব হিমায়িত করে শত শত বছর সংরক্ষণ করা যায় এবং তা জীবিত ফিরিয়ে আনা যায়। অনেক কল্পলেখকের কল্পনায় ছিল বিষয়টি। তবে জীব যত জটিল হবে, তা জীবন্ত সংরক্ষণ আরও কঠিন হবে। স্তন্যপায়ী প্রাণীর ক্ষেত্রে তা বর্তমানে সম্ভব নয়। তবে এককোষী প্রাণী থেকে যেসব আণুবীক্ষণিক প্রাণীর অন্ত্র ও মস্তিষ্ক আছে, তা সংরক্ষণের দিক থেকে একটি বড় ধাপ অর্জিত হয়েছে।

সূত্র: প্রথম আলো




স্মৃতি ও স্মরণ

ছবি