১৯শে আগস্ট, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ধূমপানমুক্ত বাংলাদেশ অর্জণে জনসচেতনতার বিকল্প নেই

আপডেট : মার্চ ২০, ২০২১ ৯:০৫ অপরাহ্ণ

213

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

২০৪০ সালের মাঝে তামাক মুক্ত বাংলাদেশ অর্জনের ঘোষণা দিয়েছে সরকার। কিন্তু বাংলাদেশে এখনো ৩ কোটি ৭৮ লক্ষ প্রাপ্তবয়স্ক মানুষ তামাকজাত পণ্যে আসক্ত। অন্যদিকে ধূমপান না করেও পাবলিক প্লেস ও পাবলিক পরিবহনে নির্ধারিত স্থানে ধূমপানের ব্যবস্থা থাকায় পরোক্ষভাবে ক্ষতির শিকার হচ্ছেন আরও ৩ কোটি ৮৪ লক্ষ মানুষ।
এর পাশাপাশি তামাক জনিত রোগে দেশে প্রতি বছর প্রায় ১ লক্ষ ৬১ হাজার মানুষ অকালে মৃত্যুবরণ করে এবং দেশ সার্বিকভাবে ৩০ হাজার ৫৬০ কোটি টাকা ক্ষতির সম্মুখীন হয়।
বিদ্যমান তামাক নিয়ন্ত্রণ আইনে কিছু দুর্বলতা যেমন পাবলিক প্লেস, কর্মক্ষেত্র, গণপরিবহনে ধূমপানের নির্ধারিত স্থান, বিক্রয়স্থলে তামাক প্রদর্শন, তামাক কোম্পানীর সামাজিক দায়বদ্ধতা কর্মসূচির (সিএসআর) সুযোগ, খুচরা তামাক পণ্য বিক্রি এবং ই সিগারেটের মত নতুন ধরনের তামাক পণ্যের বিক্রয় চলমান থাকায় তামাক নিয়ন্ত্রন আশাব্যঞ্জক ফলাফল অর্জন করতে পারছেনা।
আইনের দুর্বলতার পাশাপাশি বিদ্যমান করনীতি থেকেও তামাক ব্যবসায়ীরা নানান ধরনের সুবিধা ভোগ করে থাকে যা তাদের ব্যবসার প্রসারে ভূমিকা রাখে। যেমন, বাংলাদেশে তামাক পণ্যের ওওপর মূল্যস্তর ভিত্তিক সুনির্দিষ্ট এক্সাইজ (সম্পূরক) শুল্কের প্রচলন নেই। এছাড়াও ফিল্টার যুক্ত ও ফিল্টারবিহীন বিড়ির জন্য রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন কর ব্যবস্থা যা সব মিলিয়ে তামাক ব্যবসায়ীদের স্বার্থে কাজে লাগে।
বর্তমান অবস্থা চলমান থাকলে ২০৪০ সালের মাঝে দেশকে তামাকমুক্ত করার যে ঘোষনা প্রধানমন্ত্রী দিয়েছেন তা বাস্তবায়ন করা কঠিন হয়ে দাঁড়াবে।
এজন্য জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে সহযোগিতার প্রয়াসে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারেন গণমাধ্যম কর্মীরা।
বেসরকারি সংস্থা ভয়েস এ লক্ষ্যে একটি কর্মশালা আয়োজন করতে যাচ্ছে। ল রিপোর্টার্স ফোরাম-এলআরএফ এর সদস্যগণ এই কর্মশালায় অংশ নেবেন। আগামী ২৮ মার্চ রবিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর রুনি মিলনায়তনে তামাক সংশোধন আইন ও কর নীতিমালা পরিবর্তন বিষয়ে এ কর্মশালার আয়োজন করেছে। মানবিক অধিকার সংস্থা ভয়েস এর শ্যামলীস্থ কার্যালয়ে এ উপলক্ষ্যে এক সমঝোতা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে ভয়েস এর পক্ষে ছিলেন এর নির্বাহী পরিচালক আহমেদ স্বপন মাহমুদ আর এলআরএফ এর পক্ষে ছিলেন সংগঠনের সভাপতি মাশহুদুল হক।




স্মৃতি ও স্মরণ

ছবি