২২শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৮ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

স্মার্টফোন যখন ছয় ইঞ্চি দূরে রাখতে হবে

আপডেট : মে ১৪, ২০২১ ৪:৫৫ অপরাহ্ণ

22

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

শরীরে যুক্ত যন্ত্রের স্বাভাবিক কার্যক্রমে বাধা দিতে পারে মুঠোফোন ও স্মার্টঘড়ির মতো গ্যাজেট। এ বিষয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার সতর্ক করেছে মার্কিন খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ)।

হৃৎস্পন্দন স্বাভাবিক রাখার যন্ত্র পেসমেকার, ডেফিব্রিলেটরসহ জীবনের জন্য অত্যাবশ্যকীয় কোনো যন্ত্র যদি শরীরে থাকে, তবে মুঠোফোন ও স্মার্টঘড়ি অন্তত ছয় ইঞ্চি দূরে রাখার পরামর্শ দিয়েছে এফডিএ।

সিবিএস নিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্মার্ট গ্যাজেটের ভেতরে থাকা চুম্বক এ ধরনের চিকিৎসাসংক্রান্ত যন্ত্রের কার্যকারিতা বন্ধ করে দিতে পারে। হঠাৎ করে সেগুলোয় ‘ম্যাগনেট মোড’ সচল হয়ে যেতে পারে। এমআরআই স্ক্যান বা এ ধরনের প্রক্রিয়া নির্বিঘ্নে সম্পাদনের জন্য সচরাচর যন্ত্রগুলোয় স্বয়ংক্রিয়ভাবেই ম্যাগনেট মোড চালু হয়। তবে অন্যান্য ক্ষেত্রে হিতে বিপরীত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

এফডিএ বলছে, চুম্বক ও চিকিৎসা সরঞ্জামের মধ্যে প্রতিক্রিয়া খুব একটা হয় না। তবু শরীরে কোনো যন্ত্র প্রতিস্থাপন করা থাকলে সেটির কাছাকাছি পকেটে মুঠোফোনের মতো গ্যাজেট না রাখার পরামর্শ দিয়েছে সংস্থাটি।

এক বিবৃতিতে এফডিএ জানিয়েছে, শক্তিশালী চুম্বকের কাছে গেলে চিকিৎসা সরঞ্জামের স্বাভাবিক ক্রিয়া ব্যাহত হতে পারে। উদাহরণ হিসেবে ডেফিব্রিলেটরের কথা বলা যেতে পারে, এর কাজ হৃৎস্পন্দন স্বাভাবিক রাখা। তবে শক্তিশালী চুম্বক কাছে থাকার সময় কোনো কারণে রোগীর হৃৎস্পন্দন বেড়ে গেলে তা ডেফিব্রিলেটর না-ও শনাক্ত করতে পারে।

সতর্ক করলেও এফডিএ জানিয়েছে, চিকিৎসা সরঞ্জামের ওপর গ্যাজেটের তীব্র প্রতিক্রিয়ার কোনো ঘটনা এখনো তাদের জানা নেই। আর এতে ঝুঁকিও খুব বেশি না।

গত মার্চে মার্কিন প্রতিষ্ঠান অ্যাপলও এ ব্যাপারে সতর্ক করেছে। প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে, ‘শরীরে প্রতিস্থাপিত পেসমেকার ও ডেফিব্রিলেটরের মতো চিকিৎসাসংক্রান্ত যন্ত্রে থাকা সেন্সর চুম্বক ও বেতার তরঙ্গের খুব কাছে এলে প্রতিক্রিয়া জানাতে পারে। সম্ভাব্য বিড়ম্বনা এড়াতে আইফোন ও ম্যাগসেফ (তারহীন চার্জ করার প্রযুক্তি) অনুষঙ্গ নিরাপদ দূরত্বে (স্বাভাবিক ক্ষেত্রে অন্তত ছয় ইঞ্চি আর তারহীন প্রযুক্তিতে চার্জ করার সময় অন্তত ১২ ইঞ্চি দূরে) রাখুন। তবে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনার জন্য চিকিৎসক এবং যন্ত্র উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে পরামর্শ করুন।’

সূত্র: প্রথম আলো