২১শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সিনেমা হল খুলেছে, ‘ভাল’ ছবির অপেক্ষায় মালিকরা

আপডেট : অক্টোবর ১৭, ২০২০ ১২:৩০ পূর্বাহ্ণ

14

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

করোনাভাইরাসের আতংক কাটিয়ে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক হচ্ছে জনজীবন। একে একে খুলে দেয়া হচ্ছে সব ধরণের প্রতিষ্ঠান। সবশেষ সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১৬ অক্টোবর শুক্রবার খুলে দেয়া হয়েছে দেশের প্রেক্ষাগৃহ বা সিনেমা হল, তবে কাগজে-কলমে খুললেও বেশিরভাগ হলই ছিল বন্ধ।
বাংলা ট্রিবিউন জানায়, রাজধানীর বলাকা, মধুমিতা, জোনাকি, এশিয়া, স্টার সিনেপ্লেক্স, শ্যামলী সিনেপ্লেক্সের মতো জনপ্রিয় হলগুলোর সামনে ঝুলছে বন্ধের নোটিশ, মূল ফটকে তালা। তবে ফার্মগেটের ছন্দ-আনন্দ, ইংলিশ রোডের চিত্রামহল এবং ডেমরার রানিমহল খুলেছে। হলগুলোতে চলছে সমালোচিত নতুন ছবি ‘সাহসী হিরো আলম’।
শুধু রাজধানী নয়, গোটা দেশের চিত্র একই। ঢাকাসহ সারাদেশে মোট ৬৬টি হল খুলেছে আজ (১৬ অক্টোবর)। এরমধ্যে ৩৯টিতে মুক্তি পেয়েছে ‘সাহসী হিরো আলম’। বাকি ২৭ হলে চলছে পুরনো ছবি। যার বেশিরভাগই শাকিব খানের। নতুন-পুরনো দুটো ক্ষেত্রেই এদিন হলগুলোতে দর্শক উপস্থিতি ছিল অনুল্লেখযোগ্য।

রাজধানীর অভিজাত দুই মাল্টিপ্লেক্সের মধ্যে যমুনা ব্লকবাস্টারের অর্ধেক খুলেছে। তাদের সাতটি স্ক্রিনের মধ্যে তিনটিতে ছবি চলছে। দর্শক বাড়লে বাকিগুলোও খুলে দেওয়ার পরিকল্পনা আছে সংশ্লিষ্টদের। অন্যদিকে দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় চেইন মাল্টিপ্লেক্স স্টার সিনেপ্লেক্সের সবক’টি হল বন্ধ রয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির মিডিয়া অ্যান্ড মার্কেটিং বিভাগের সিনিয়র ম্যানেজার মেসবাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার কারণে স্বাস্থ্য নিরাপত্তার জন্য যাবতীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার জন্য দুই সপ্তাহ সময় লাগছে। সে হিসেবে ২৩ অক্টোবর থেকে আমরা সব শাখা একসঙ্গে খোলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।’

যুগান্তর জানায়, দীর্ঘ ৭ মাস পর খুলেছে বরিশালের চলচ্চিত্র বিনোদনের একমাত্র প্রেক্ষাগৃহ অভিরুচি সিনেমা হল। যেখানে ৯শ’ সিটের সিনেমা হলে শুক্রবার প্রথম শোতে দর্শক ছিলেন মাত্র ১০ জন। বন্ধের আগে প্রদর্শিত শাকিব খানের শাহেন শাহ ছবি দিয়েই ফের সিনেমা হলটি চালু হয়।
অভিরুচি প্রেক্ষাগ্রহের ম্যানেজার সৈয়দ রেজাউল কবীর বলেন, ৭ মাস হল বন্ধ থাকার সময় সিনেমা হলের কোনো কর্মচারী সরকারিভাবে কারও কাছ থেকে কোনো ধরনের সাহায্য-সহযোগিতা পাননি।
অভিরুচি প্রেক্ষাগ্রহের স্বত্বাধিকারী এবায়েদুল হক চান বলেন, এই ৭ মাস কিছু কিছু স্টাফকে বেতন দিতে হয়েছে। আর কেউ কেউ ছুটিতে ছিলেন। এখন খুললেও নতুন কোনো ছবি পাওয়া যায়নি। আশা করছি আগামী সপ্তাহে নতুন সিনেমা আসছে।
প্রদর্শক সমিতির সাবেক সভাপতি ও মধুমিতা হলের মালিক ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেছেন,
‘ভালো ছবি না আসলে হল খুলবো না। যেসব ছবির কোনও কোয়ালিটি নেই সেসব চালাতে চাই না। এতে লাভ তো দূরে থাক, খরচের টাকা ওঠে না। প্রয়োজনে বাইরে থেকে ছবি আনবো, তবু মানহীন কিছু চালাবো না।’




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *