২০শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৬ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সন্তানরা শিখবে কোথা থেকে?

আপডেট : জানুয়ারি ১১, ২০২১ ১১:০৪ অপরাহ্ণ

5

শরিফুল হাসান

কলাবাগানে ধর্ষণের পর শিক্ষার্থী হত্যার বিষয়ে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ বলেছেন, এটা পূর্ণাঙ্গ ক্রাইম। এখানে ধর্ষণ করা হয়েছে। এখানে, মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

আইজিপি বলেন, পরিবারকে জানতে হবে, তার ছেলে বা মেয়ে কোথায় যায়, কার সঙ্গে মেশে, কী করে ছেলেমেয়েদের ভেতরে নৈতিকতার, মূল্যবোধের বিষয়গুলো গঠিত করার দায়িত্ব পরিবারকে নিতে হবে। সমাজকে এ দায়িত্ব নিতে হবে। পরবর্তী প্রজন্মের একটা অংশ এভাবে ধ্বংস হয়ে যাবে, আমরা এটা চাই না। এটা কোনো সুস্থ জাতির লক্ষণ হতে পারে না।’

আইজিপির সঙ্গে আমি পুরোপুরি একমত। কিন্তু কথা হলো ছেলেমেয়ে কোথা থেকে মূল্যবোধ শিখবে? একজন শিশু প্রথমে মূল্যবোধ শেখে পরিবারের কাছ থেকে, এরপর স্কুল, এরপর সমাজ ও রাষ্ট্র। প্রতিষ্ঠানগুলো সব ঠিক আছে তো?

প্রথমে আসেন পরিবারে। মূল্যবোধ শেখার সবচেয়ে বড় জায়গা পরিবার। কিন্তু বাবা-মারা সন্তানদের বললেই কী তারা শিখে যাবে? মনে রাখবেন, সন্তানকে যতোই ভালো উপদেশ দেই না কেন, ওরা কিন্তু আপনাকে অনুসরণ করবে, উপদেশকে নয়।

উদাহরণ দিয়ে বোঝাই। আপনি অসৎ পথে আয় করবেন, হারাম খাবেন আর সন্তানকে সততার কথা বলবেন তাতে কাজ হবে না। আপনার সন্তান যখন দেখবে আপনি একটা সরকারি চাকুরি করেন কিন্তু বেতনের চেয়ে আপনার খরচ বেশি, ঘুষের আয়, আপনার সন্তান কিন্তু আপনাকে শ্রদ্ধা করবে না। তার মধ্যে মূল্যবোধ তৈরি হবে না। আপনি হয়তো ভাবছেন সন্তানের জন্য টাকা বানাচ্ছেন, গাড়ি, ফ্ল্যাট কিন্তু কোন কাজে আসবে না।

শুধু সরকারি চাকুরি কেন, সব পেশার ক্ষেত্রেই একই কথা প্রযোজ্য। ধরেন, আপনি ব্যবসায়ী, আপনার সন্তান যদি দেখে আপনি অসৎ ব্যবসা করেন তার মধ্যে মূল্যবোধ তৈরি হবে না। আপনি যদি বাসার কাজের লোককে গালি দেন সেও গালি দেবে। ওরা আপনাকে দেখে শিখবে, শুনে নয়। কাজেই পরিবারে সবার আগে মূল্যবোধ চর্চা জরুরী। আজকের বাংলাদেশে এটার বড় অভাব।

পরিারের পাশাপাশি নজর দিতে হবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। ধরেন পরিবার ধেকে মূল্যবোধ তৈরি করে দিলেন কিন্তু আপনার সন্তান যে স্কুল-কলেজে যাচ্ছে সেখানে মূল্যবোধ তৈরি হচ্ছে তো? কারা শিক্ষক হচ্ছে? সমাজের সবচেয়ে মেধাবী ও মূল্যবোধ কী তাদের আছে? আমাদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্কুল কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের দিকে তাকান। উত্তর পেয়ে যাবেন।

পাশাপাশি তাকান সমাজ ও রাষ্ট্রের দিকে। আমাদের মূল্যবোধ কোথায়। দেখেন, ১৬ বছরের সুইডিশ কিশোরী গ্রেটা থানবার্গ যে পৃথিবীকে বাঁচাবার জন্য লড়ছে, সে কিন্তু এক দিনে এমন হয়নি। সে তার চারপাশ থেকে শিখেছে কেন পরিবেশের যত্ন নেয়া জরুরী। কিন্তু আমাদের এখানে আমরা কী করি? কী নিয়ে আলোচনা করি? কী দেখে আমাদের সন্তানরা চারপাশে?

আচ্ছা এই সমাজ কী নারীদের সম্মান করে? কয়জন আমরা আরেকজনের বিপদে দাঁড়াই আমরা? আমাদের সমাজ আমাদের কী শেখাচ্ছে? আমাদের সমাজে কারা ক্ষমতাশালী। কারা মসজিদ কমিটির সভাপতি? এলাকায় কাদের দাপট? আচ্ছা বলেন তো আমাদের শিশু-কিশোররা কাদের দেখে শিখবে? তাদের সামনে আইকন কে?

সবার মনে রাখা উচিত, আমরা নিজেরা ভালো না হলে আমাদের পরবর্তী প্রজন্মকে ভালো করা কঠিন। কাজেই চলুন আমাদের সন্তানদের আমরা ভালো মানুষ বানাই। মূল্যবোধ শেখাই। আর সবার আগে সেটা পরিবার থেকেই করতে হবে। আর সেটা শেখাতে হলে নিজেদের মুল্যবোধের চর্চা জরুরী। কাজেই চলুন আগে নিজেদের বিবেক জাগ্রত করি। সবাইকে শুভরাত্রি।

(লেখক- সাংবাদিক। লেখকের ফেসবুক স্ট্যাটাস থেকে।)




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *