২৯শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

লাইফ স্টাইল মানুষের ব্যক্তিগত বিষয়

আপডেট : অক্টোবর ১৪, ২০২০ ৫:০৯ অপরাহ্ণ

312

ফারিন হক

মেয়েদের খোলামেলা পোশাক পড়তে ইচ্ছে করা- ধর্ষিত হওয়ার জন্য নয়! নারী খোলামেলা পোশাক পরে- তার সৌন্দর্য প্রস্ফুটিত করতে, অবয়ব ফুটিয়ে তুলতে, স্টাইলিস্ট লাগতে, আবেদনময়ী লাগতে, অন্যদের থেকে স্বতন্ত্র লাগতে, নিজেকে প্রিন্সেস ভাবতে, ক্লাসি ভাবতে, সেক্সি ভাবতে, ট্রেন্ডি লাগতে, কালারফুল লাইফ লীড করতে।

ছোট ছোট মেয়েরা যখন হাতাকাঁটা জামা পরে, শর্টস পরে, ব্যান্ড-ক্লিপ পরে, মায়ের মেকআপ সামগ্রী চুরি করে লাগায়, হাইহীল, চুড়ি, ভ্যানেটি ব্যাগ নিয়ে ট্রায়াল দেয়। কিউট লাগে! মেয়েরা জন্মসূত্রেই এমন। সেই বাচ্চারা কি ধর্ষণ চিনবে? নাকি ধর্ষণের জন্য পোশাক কে দায়ী বলে মনে করবে?

সৌন্দর্য প্রদর্শন একটা শিল্প! ফ্যাশন ওয়ার্ল্ডে এটি এখন কালচারে রূপান্তরিত হয়েছে। মানুষ যথেষ্ট রূপ সচেতন। বিউটি কন্টেস্ট হয়। এই প্রতিযোগিতায় যুগে মানুষ এমনকি ক্লিওপেট্রার রূপের রহস্য জানতে উদগ্রীব! আকস্মাৎ তার মতের বিরুদ্ধ তার উপর কেউ ঝাঁপিয়ে পড়বে, এই নাইটম্যায়ার নিয়ে কেউ জীবনধারন করে না।

সাজসজ্জার পিছে টাকা খরচ করা, রিপ-জিন্স পরা,ট্যাটু করা, কানে দুল পরা, হেয়ার-কালার করা, ছেলে-মেয়ে উভয়েরই প্যাশন বা শখ হতে পারে। মর্ডান প্রযুক্তির যুগে এটিই বরং স্বাভাবিক প্রবৃত্তি। মধ্যযুগীয় কায়দায় কেউ এসে তার বস্ত্র ছিনিয়ে নেবে এই আশঙ্কা থেকে নিশ্চয় করে না।

যার যার লাইফ স্টাইল তার তার ব্যক্তিগত ব্যাপার, অধিকার, স্বকীয়তা, স্বাধীনতা। তার ভুবনে সে রাজা; তার ভুবনে সে রানী! কে কাকে বিয়ে করবে? কার সাথে প্রেম করবে? নাকি চিরকুমার-চিরকুমারী থাকবে? খোলামেলা বাড়িতে থাকবে নাকি খোলা গাড়িতে ঘুরবে! এসব কেউ ধর্ষক’কে প্রলুব্ধ করার জন্য করে না।

অনেকে বাচ্চা, পশু-পাখি মূর্তি ডামিকেও এবিউজ করে, এসব সিক ম্যান্টালেটির বহিপ্রকাশ! রাস্তার পাগলি’টাও মা হয় প্রতিবছর! সেও শুয়োরের হাত থেকে নিজেকে বাঁচাতে পারে না। নিরুপায় সে তার সেই উপলব্ধিও নেই, ধর্ষক কি জিনিস সে আদৌ জানে না। অথচ যুগে যুগে কবিতা/গান/উপন্যাস/পেইন্টিং ভাস্কর্য, সব কিছুতেই নারীর সৌন্দর্যের বর্ণনা আছে। তাদের চোখে কেউ দেবী, কেউ প্রেয়সী, কেউ ললনা, কেউ ইভেন ছলনাময়ী! বাট তাতেই বা কি? তাতেও তো ধর্ষণ করা জায়েজ হয়ে যায় না।

(লেখক-কলামিস্ট।)