২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

যথাযোগ্য মর্যাদায় শহিদ দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছে বাংলাদেশ দূতাবাস ভিয়েনা

আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২১, ২০২১ ১০:০০ অপরাহ্ণ

5

হাসান তামিম, ভিয়েনা থেকে

ভিয়েনাস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস এবং স্থায়ী মিশন শহিদ দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করেছে। সকাল নয়টায় দূতাবাস প্রাঙ্গণে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ এবং দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীগনসহ রাষ্ট্রদূত আবদুল মুহিত অস্থায়ী শহিদ মিনারে ফুল দিয়ে ভাষা শহিদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস ও শহিদ দিবস উপলক্ষে এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভার আয়োজন করে ভিয়েনাস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস এবং স্থায়ী মিশন। উক্ত ভার্চুয়াল আলোচনা সভার শুরুতে দিবসটি উপলক্ষে মহামান্য রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্রপ্রতিমন্ত্রীর বাণী পাঠ করা হয়।

দূতাবাসের প্রথম সচিব এবং দূতালয় প্রধান তারাজুল ইসলামের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় অস্ট্রিয়া, হাংগেরি, স্লোভেনিয়া ও স্লোভাকিয়াতে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীরা উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা সভায় বক্তারা প্রবাসে বসবাসরত নতুন প্রজন্মের মাঝে মাতৃভাষা চর্চার উপর গুরুত্বারোপ করেন।এছাড়া অস্ট্রিয়াতে একটি স্থায়ী শহিদ মিনার স্থাপনের জন্য অনুরোধ জানান অস্ট্রিয়ার প্রবাসী বাংলাদেশীরা।

সমাপনী বক্তব্যে রাষ্ট্রদূত আবদুল মুহিত বলেন, বর্তমানে সরকারের উদ্যোগেই ১৯৯৯ সালে ইউনোস্কো একুশে ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেয় এবং স্বীকৃতির মাধ্যমে বাঙালি জাতি বিশ্বে আরও মর্যাদাশীল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়। তিনি সবাইকে একুশে চেতনা ও মূল্যবোধ ধারন করার আহবান জানান। এছাড়াও রাষ্ট্রদূত আবদুল মুহিত জানান, কোভিড-১৯ মহামারীর কারনে অন্যান্য বছরের মতো ভিয়েনা জাতিসংঘের সদর দপ্তরে দিবসটি উপলক্ষ্যে পূর্বনির্ধারিত অনুষ্ঠান করা সম্ভব হচ্ছে না, তবে বাংলাদেশ দূতাবাস ও স্থায়ী মিশন বাংলাসহ অন্যান্য ভাষায় জাতিসংঘের ভিয়েনা দপ্তরের ভার্চুয়াল পরিদর্শনের সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে। সর্বশেষ রাষ্ট্রদূত মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুকরণীয় ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বের প্রশংসা করেন।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *