৩১শে জুলাই, ২০২০ ইং | ১৬ই শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

মডেলিংয়ের জন্য তরুণীকে ডেকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

আপডেট : জুলাই ১৭, ২০২০ ১১:৩১ পূর্বাহ্ণ

282

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

গাজীপুর থেকে পঞ্চগড়ে মিউজিক ভিডিওতে মডেলিং করার জন্য ডেকে নিয়ে এক তরুণীকে (২৮) সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় তিনজনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতপরিচয় ১০-১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ভুক্তভোগী তরুণী। মামলার প্রধান দুই আসামি পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক আবিদা সুলতানা লাকী এবং অনলাইনভিত্তিক (আইপি) ‘প্রথম বাংলা টিভি’র চিফ নিউজ এডিটর ও ইউটিউবার সাজ্জাদ হোসেন মিলনকে গত বুধবার রাতে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল বৃহস্পতিবার তাঁদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলায় এক ধর্মীয় সংখ্যালঘু তরুণী সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। একই জেলার উজিরপুরে ধর্ষণে অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী এক কিশোরী। হবিগঞ্জের নবীগঞ্জে চতুর্থ শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী ও নড়াইলের লোহাগড়ায় এক নারীকে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা করা হয়েছে। নড়াইলের কালিয়া উপজেলায় কিশোরীকে (১৩) ধর্ষণের অভিযোগে গতকাল এক প্রবাসীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পঞ্চগড় : মামলা সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী মডেল তরুণী সপরিবারে গাজীপুরের কালিয়াকৈরে থাকেন। ইউটিউবের জন্য বিভিন্ন মিউজিক ভিডিওতে কাজ করার সময় পাঁচ বছর আগে তাঁর সঙ্গে পরিচয় হয় পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার সাজ্জাদ হোসেন মিলনের। বোদার ঝিনুকনগরের রফিকুল ইসলামের ছেলে সাজ্জাদ ঢাকায় ভিডিও সম্পাদনার কাজ করেন এবং প্রথম বাংলা টিভি নামের একটি প্রতিষ্ঠানের চিফ নিউজ এটিডর ও গ্রাফিক ডিজাইনার। সম্প্রতি সাজ্জাদ বোদা উপজেলায় একটি মিউজিক ভিডিও তৈরির জন্য মডেল হিসেবে কাজ করতে ওই তরুণীকে আসতে বলেন। গত মঙ্গলবার সকালে সেখানে পৌঁছেন তরুণী। সাজ্জাদ তাঁকে নিয়ে যান বোদা উপজেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক আবিদা সুলতানা লাকীর থানাপাড়ার বাড়িতে। সেখানে তরুণীকে ফাঁদে ফেলে সাজ্জাদসহ চার-পাঁচজন ধর্ষণ করে। পরদিন তাঁকে বোদা পৌর এলাকার ভাসাইনগরে এক বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানেও তাঁকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়। সন্ধ্যার পর তরুণী সেখান থেকে পালিয়ে বোদা থানায় আশ্রয় নেন ও মামলা করেন। মামলার নামীয় অন্য আসামি হলেন বোদার নগরকুমারী এলাকার জসীম উদ্দিন (২২)।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বোদা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবু সায়েম মিয়া বলেন, ‘আমরা আদালতে গ্রেপ্তার হওয়া দুজনের পাঁচ দিন করে রিমান্ড আবেদন করেছি। বাকি আসামিদের গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।’ পঞ্চগড় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী বলেন, ‘আমরা ধারণা করছি, ঘটনার সাথে বড় চক্র কাজ করেছে। আমরা পুরো চক্রকেই বের করতে কাজ করছি।’

বানারীপাড়া (বরিশাল) : বানারীপাড়ার বুধবারের ঘটনায় পাঁচজনকে আসামি করে গতকাল সকালে বানারীপাড়া থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেছেন পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার ভুক্তভোগী তরুণী। আসামিরা হলেন বানারীপাড়ার চাখার এলাকার জুয়েল (৩২), শাহাদাত হোসেন (৪৫), হেমায়েত (৩৫), আমির হোসেন (৩৫) ও আসমা বেগম (৩৫)। জুয়েল ও শাহাদাতকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, তরুণী বুধবার বিকেলে বরিশাল শহরে কাকার বাসায় বেড়ানো শেষে বানারীপাড়া হয়ে নিজ বাড়ি ফেরার উদ্দেশে নথুল্লাবাদ থেকে মহেন্দ্র-আলফায় যাত্রী হন। সন্ধ্যায় গাড়িটি বানারীপাড়ায় এলে চালক শাহাদাত ও যাত্রী আমির তরুণীকে বলেন, নাজিরপুরে তরুণীর গ্রামে যেতে অনেক রাত হয়ে যাবে। পথে বিপদ হতে পারে। তাই পরদিন সকালে যাবেন। এসব বলে তরুণীকে শাহাদাতের বাসায় রাতে থাকার জন্য নিয়ে যান তাঁরা। সেখানে শাহাদাত, আমির ও শাহাদাতের ভাড়াটিয়া ঘরের মালিক বিউটিশিয়ান আসমা বেগমের সহায়তায় তরুণীকে জুয়েল ও হেমায়েত ধর্ষণ করেন। রাতেই তরুণী কৌশলে চাখার পুলিশ ক্যাম্পে গিয়ে ঘটনা জানান। খবর পেয়ে বানারীপাড়া থানার পুলিশ শাহাদাত ও জুয়েলকে আটক করে।

আগৈলঝাড়া (বরিশাল) : উজিরপুরের ঘটনায় অভিযুক্ত শাহাবুদ্দিন বেপারীর (২৬) বাড়ি উপজেলার গাজীরপাড় গ্রামে। এ ঘটনায় গত মঙ্গলবার ভুক্তভোগী কিশোরীর চাচা উজিরপুর মডেল থানায় শাহাবুদ্দিনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. হেলাল উদ্দিন জানান, আসামিকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ) : নবীগঞ্জে স্কুলছাত্রী ধর্ষণে অভিযুক্তের নাম জাবেদ উল্লা (৫৫)। তিনি নবীগঞ্জ উপজেলা সদর ইউনিয়নের পূর্ব জাহিদপুর গ্রামের শায়েস্তা মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় শিশুটির এক স্বজন গত ১০ জুলাই নবীগঞ্জ থানায় মামলা করেছেন। জানা যায়, গত জুন মাসের এক দুপুরে শিশুটি জাবেদ উল্লার দোকানে চানাচুর কিনতে যায়। তখন জাবেদ শিশুটিকে ধর্ষণ করেন। পরে তার শারীরিক সমস্যা দেখা দিলে সে পরিবারকে বিস্তারিত জানায়।

নড়াইল : কালিয়ায় কিশোরীকে বিভিন্ন সময়ে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার শের আলী (৩৫) উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের বাসিন্দা। অসুস্থ কিশোরীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য নড়াইল সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। কালিয়া থানার ওসি মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, শের আলী প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছেন।

লোহাগড়া (নড়াইল) : লোহাগড়ায় গত ৮ ও ১২ ঝুলাইয়ের ঘটনায় বুধবার রাতে ভুক্তভোগী নারীর (২১) করা মামলার দুই আসামি হলেন উপজেলার মাইটকুমড়া গ্রামের আ. হান্নান হিরু শেখ জিনিয়াস (৩৬) ও একই গ্রামের ইমরান (২৭)। লোহাগড়া থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, ইমরানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তথ্য সূত্র – কালের কন্ঠ