১৪ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৩১শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিল ও মেলিন্ডা গেটসের ব্যয়বহুল বিচ্ছেদ

আপডেট : মে ৪, ২০২১ ১২:৪৭ অপরাহ্ণ

16

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

২৭ বছরের দাম্পত্য জীবনের ইতি টানছেন বিল গেটস ও মেলিন্ডা গেটস।

তাদের এই বিবাহ বিচ্ছেদের যৌথ ঘোষণা মানবহিতৈষী জগতকে নাড়িয়ে দিয়েছে বলে রয়টার্সের মঙ্গলবার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

বিল গেটসের টুইটার অ্যাকাউন্টে এক বিবৃতিতে দুজন বলেন, “আমাদের সম্পর্ক নিয়ে অনেক চিন্তাভাবনার পর আমরা বিয়ের ইতি টানার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

‘আমাদের জীবনের পরবর্তী পর্বে দম্পতি হিসেবে একসঙ্গে জীবন এগিয়ে নিতে পারব বলে আমরা আর বিশ্বাস করি না। নতুন জীবনের পথে চলা শুরুর কালে আমাদের পরিবারের জন্য একান্ত পরিসর চাইছি।”

তাদের এই বিচ্ছেদের ঘোষণা বিশ্বের সবচেয়ে সম্মানীয় দাতব্য সংস্থা ‘বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন’–এর জন্য প্রথমে একটা ভূমিকম্পের মতোই ছিল। তবে দুজনই আশ্বস্ত করেছেন, ফাউন্ডেশনের ওপর এই বিচ্ছেদের কোনো প্রভাব পড়বে না।

পরে এক বিবৃতিতে ফাউন্ডেশনও জানায়, তারা দুজনেই ফাউন্ডেশনের কো–চেয়ারম্যান ও ট্রাস্টি হিসেবে থাকবেন। অর্থাৎ ফাউন্ডেশনে তারা এক থাকছেন। তবে বিশ্বের সম্পত্তির হিসাব–নিকাশ হয়তো এতটা সহজ হবে না।

বিচ্ছেদের পিটিশন আদালতের কাছে তারা এই বৈবাহিক সম্পর্ক মিটিয়ে ফেলার আবেদন জানান। সেই সঙ্গে বিচ্ছেদ চুক্তি অনুযায়ী ব্যবসায়িক স্বার্থ, দায়বদ্ধতা ও যৌথ মালিকানাধীন সম্পত্তি ভাগ করার বিষয়ে আবেদন জানিয়েছেন। তবে এ বিষয়ে এখনো কিছু প্রকাশ করা হয়নি।

বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ ধনী মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস যুক্তরাষ্ট্রে বেসরকারিভাবে সবচেয়ে বেশি কৃষিজমির মালিক। ২ লাখ ৪২ হাজার একর কৃষিজমির মালিক তিনি। যুক্তরাষ্ট্রের ১৮টি অঙ্গরাজ্যে বিল গেটস ও মেলিন্ডা গেটসের মালিকানায় রয়েছে এসব কৃষিজমি। এর মধ্যে লুইজিয়ানায় ৬৯ হাজার ৭১ একর, আরকানসাসে ৪৭ হাজার ৯২৭ একর ও নেব্রাস্কায় ২০ হাজার ৫৮৮ একর কৃষিজমি রয়েছে। তাদের বিচ্ছেদ হওয়ায় এখন এই সম্পত্তির ভাগের বিষয়টি জটিল আকার ধারণ করবে বলেই মনে করা হচ্ছে। এ ছাড়া গেটস পরিবারের সম্পদের পরিমাণ প্রায় ১০০ বিলিয়ন ডলার। তাই বিল গেটসের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদের আপস-রফা হিসেবে মেলিন্ডা কী পাবেন, তা নিয়ে চলছে জল্পনা।

বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন

১৯৮৭ সালে মাইক্রোসফটে প্রোডাক্ট ম্যানেজার হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন মেলিন্ডা। সে সময় থেকে দুজনের মধ্যে বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। একসময় তা প্রেম পর্যন্ত গড়ায়। ১৯৯৪ সালে বিয়ে করেন গেটস ও মেলিন্ডা। এই দম্পতির তিন সন্তান রয়েছে।  বিয়ের ছয় বছর পর তারা যৌথভাবে গড়ে তোলেন দাতব্য প্রতিষ্ঠান ‘বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন’। বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে নানামুখী কাজ করছে এই ফাউন্ডেশন। বিশ্বজুড়ে সংক্রামক রোগব্যাধির বিরুদ্ধে লড়াই ও শিশুদের টিকাদানে উৎসাহিত করতে শুরু থেকে এখন পর্যন্ত এ ফাউন্ডেশন প্রায় ৫৪ বিলিয়ন ডলার খরচ করেছে। ক্ষুধা-দারিদ্র্যমুক্ত, সচেতন, শিক্ষিত ও স্বাস্থ্যবান একটি বিশ্ব গড়ে তোলা এ সংস্থার প্রধান উদ্দেশ্য। বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন প্রতিবছর প্রায় পাঁচ বিলিয়ন ডলার ব্যয় করে স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নে।

২০০৮ সালে পোলিও প্রতিরোধের জন্য বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে ৬৮ কোটি ২৩ লাখ ডলার অনুদান দেন বিল গেটস। এর আগে এত অনুদান পায়নি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। বর্তমানে মহামারি করোনাভাইরাস মোকাবিলায় বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে ১৫ কোটি ডলারের আর্থিক সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশন। প্রয়োজনে তা ২৫ কোটি ডলারের উন্নীত করার আশ্বাস দিয়েছেন বিল গেটস।

১৯৯৪ থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত এই ফাউন্ডেশনে ৩ হাজার ৬০০ কোটি ডলার দিয়েছেন গেটস ও মেলিন্ডা দম্পতি। ২০১৯ সালের শেষ পর্যন্ত আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী এই ফাউন্ডেশনের আকার ৪ হাজার ৩৩০ কোটি ডলার। এই আকার ৫ হাজার কোটি ডলারে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্য বিল গেটস ও মেলিন্ডা গেটসের।

সূত্র: প্রথম আলো




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *