১৮ই জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৪ঠা মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

দেশপ্রেমিক থেকে পদ পদবীর প্রেমিক বেশি।

আপডেট : ডিসেম্বর ১৪, ২০২০ ১২:৪১ অপরাহ্ণ

18

হাসান তামিম

পৃথিবীতে একমাত্র জাতি হয়তবা আমরাই যারা দেশপ্রেমিক না বরং পদের প্রেমিক বেশি। দেশপ্রেম দিয়ে কি হবে? দেশ গোল্লায় যাক। কিন্ত পদ পদবী না থাকলে ইজ্জতে বারোটা বাজবে।

পদ দিয়ে কি হবে? আরে ভাই কি বলেন, আপনি বোকা নাকি? পদ থাকলে পোষ্টার ছাপিয়ে মানুষকে জানাবো আমি হচ্ছি ওমুক দলের ওমুক পোষ্টে আছি। তাহলে সবাই আমাকে সন্মান করবে। আর বিভিন্ন ক্ষেত্রে পদের ক্ষমতা দেখিয়ে কিছু উপরি ইনকাম করা যাবে।

যদি জিজ্ঞেস করি ভাই দেশপ্রেম বলতে কি বোঝায়? ধুর মিয়া বর্তমান যুগে দেশপ্রেম বলতে কিছু আছে নাকি। টাকা কামিয়ে সব বিদেশে পাচার করে দিলে কেউ আমাকে ধরতে পারবে না। কারন ওই যে নামের আগে একটা পদবী আছে। কে কি করবে?

এই হচ্ছে পদ পদবী রাজনৈতিক নেতাদের অবস্থা। দেশপ্রেমিক বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিজেকে জাহির করে কিন্ত বিন্দুমাত্র দেশপ্রেম নেই। এরা হয়তবা আমাদের দেশের অতীত ইতিহাস জেনেও না জানার ভান করেন। বাংলাদেশের পতাকা এত সহজে অর্জিত হয়নি। আমাদের দেশের সূর্য সন্তানদের তাজা রক্তের বিনিময়ে এসেছে স্বাধীনতা।

দেশপ্রেমিক একজন ব্যক্তি কখনোই দুর্নীতি করবে না কিংবা দেশের সম্পদ বাইরে পাচার করবে না। দেশপ্রেমিক একজন ব্যক্তি কখনোই পদের লোভ করবে না। কিংবা নামের আগে পদ পদবী লাগিয়ে প্রভাব খাটাবে না। একজন দেশপ্রেমিক মানুষ তেলবাজির মাধ্যমে নিজেকে সাচ্চা রাজনৈতিক আদর্শের মানুষ হিসেবে দাবি করবে না।

বিজয়ের মাসে ব্যানার পোষ্টার ছড়াছড়ি। তার মধ্যে দুই একজন বাদে অধিকাংশ পদ পদবীর প্রেমি। পদ পদবী না পেলে জীবন তাদের মূল্যহীন। দেশপ্রেম তো দূরে থাক এরা নিজ দেশের জনগনকেই ঘৃণা করে।

আমাকে অনেকেই বলতে পারেন প্রবাসে থেকে দেশপ্রেম নিয়ে এতকথা বলেন কেন? আমি তাদেরকে বলবো আমার পাসপোর্ট সবুজ আমি এখনো বাংলাদেশেরই নাগরিক। কিন্ত প্রবাসে বিদেশী পাসপোর্ট নিয়ে রাজনীতি করা বাটপারগুলারে কি বলবেন। এদের তো বাংলাদেশে ভোটাধিকার নেই। এরা কিভাবে দেশপ্রেমিক রাজনীতিবিদ হলো? ও ভুলেই গিয়েছিলাম বাংলাদেশে তো গোড়ামির ব্যাপক বিস্তার। ভুল ধরিয়ে দিলেও গোড়ামির মাধ্যমে ভুলকে শুদ্ধ বলে চালিয়ে দিবে। তবে অনেক দেশপ্রেমিক মুক্তিযোদ্ধা দেখেছি যারা একমাত্র দেশকে ভালোবেসে পাসপোর্ট পরিবর্তন করেনি। এদের সংখ্যা খুবই নগন্য।

নতুন প্রজন্মের কাছে পদ প্রেম শিখিয়ে দিলে বাংলাদেশে কখনোই রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা আসবে না। সুতরাং পদ প্রেমের ভন্ডামি বাদ দিয়ে দেশপ্রেমে উজ্জীবিত হয়ে দেশের সম্পদ অন্তত দেশে রেখেই কিছু করার চেষ্টা করুন। সাধারন জনগন বর্তমান জমানায় এইসব ভন্ডামি ভালো করেই বুঝতে শিখেছে।