২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

থাইল্যান্ডে থাই-বাংলাদেশী কমিউনিটি পাতায়ার উদ্যোগে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা পালন

আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২১ ২:৫৩ অপরাহ্ণ

11

কামরুল আলম রানা, থাইল্যান্ড থেকে

মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে থাইল্যান্ডে বসবাসতর বাঙ্গালীরা দিনটি স্নরণে করে রাখতে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত থাইল্যান্ডেও যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উৎযাপন করেছেন থাই-বাংলাদেশী কমিউনিটি পাতায়া।

শহীদ মিনারে পুস্প অর্পনের মধ্য দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান তাহারা। পরে পাতায়া ইউনিক রিজেন্সি হোটেলের হল রুমে একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তেলোয়াত করা হয়, জাতীয় সংগীত পরিবেশন, শহীদের প্রতি শদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন থাইল্যান্ড পাতায়ার ডেপুটি মেয়র রনাকিথ একাসিং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন থাইল্যান্ড চনবুরি প্রভিনসিয়াল এ্যাডমিনিস্ট্রাটিভ ওরগানাইজেসান কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান নাখন পোন লুকিন ও লিয়া দীপ্ত গ্রুপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর লিটন শিকদার।

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন থাই-বাংলাদেশী কমিউনিটি পাতায়া এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জনাব জাহাঙ্গীর হোসেন।

বর্তমান সভাপতি জনাব আব্দুল আলীম (মোল্লা),সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান শামীম সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ, অতিথিবৃন্দ ও পাতায়ায় অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশীরা।

উক্ত সভার সভাপতিত্ব করেন থাই- বাংলাদেশী কমিউনিটির বর্তমান সভাপতি জনাব আব্দুল আলিম মোল্লা।

সভায় বক্তারা বলেন ১৯৫২ সালের এই দিনে রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে দূর্বার আন্দলনে সালাম,জব্বার,শফিক, বরকত সহ নাম না জানা অনেক ভাষা শহীদের রক্তের বিনিময়ে বাঙ্গালি জাতি মাতৃভাষা হিসেবে পায় বাংলা।

বিশ্বপ বাঙ্গালী একমাত্র জাতি যারা ভাষার জন্য জীবন দিয়েছেন।মায়ের ভাষার জন্য যে অকুতোভয় বীরসন্তানরা জীবন উৎস্বর্গ করেছেন সেই মৃত্যুঞ্জয়ী বীর সন্তানদের গভীর বেদনা ও শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন বক্তারা।

উক্ত অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন থাই-বাংলাদেশী কমিউনিটি পাতায়া এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জনাব জাহাঙ্গীর হোসেন, বর্তমান সভাপতি আব্দুল আলিম (মোল্লা), সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ আনিসুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শামসুজ্জামান শামীম, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ সোলায়মান ও প্রচার সম্পাদক নূরুন নবী (জয়)।

পরিশেষে তারা কমিউনিটির উদ্যোগে আয়োজিত একুশের অনুষ্ঠানে স্পন্সর করায় সুমনা গ্রুপ,লিয়া দীপ্ত গ্রুপ এবং ইউনিক রিজেন্সিকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানিয়ে ভবিষ্যতেও কমিউনিটির যেকোন সামাজিক কর্মকান্ডে তাদের পাশে পাওয়ার আশা ব্যক্ত করেন।

পরে এক মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে পুনরায় জাতীয় সংগীত পরিবেশন ও নৈশভোজনের মাধ্যমে সভার সমাপ্তি ঘোষণা করা হয়।




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *