১৮ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ৫ই বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

থাইল্যান্ডে ঘুরতে এসে যেভাবে কম খরচে ডাক্তার দেখাবেন

আপডেট : এপ্রিল ৩, ২০২১ ১:৩১ অপরাহ্ণ

20

কামরুল আলম রানা, থাইল্যান্ড থেকে

থাইল্যান্ড সারা বিশ্বের কাছে পর্যটন দেশ হিসেবে বেশ পরিচিত। সারা বিশ্ব থেকে আসে লাখ লাখ পর্যটক থাইল্যান্ডে। তেমনি বাংলাদেশ থেকেও প্রতি বছর হাজার হাজার পর্যটক আসেন থাইল্যান্ডে ঘুরতে। আপনি জেনে অবাক হবেন যে বিশ্বে চিকিৎসা সেবায় থাইল্যান্ড অনেক এগিয়ে।

আপনি ঘুরতে আসার ফাঁকে যদি হাতে কিছুটা সময় থাকে তাহলে আপনিও নিতে পারেন কম খরচে উন্নতি চিকিৎসা সুবিধা।

আজ এমন একটি সরকারি হাসপাতালের কথা বলবো যেটি থাইল্যান্ডের পাতায়াতে অবস্থিত। নাম- বাংলামুং হাসপাতাল। আপনি পর্যটক হোন বা ওয়ার্ক পারমিট ধারী হোন কোন সমস্যা নেই, আপনার কাছে পাসপোর্টের ফটোকপি থাকলেই চলবে।

সকাল ৮ টার আগে গাড়ি বা ট্যাক্সি করে চলে যাবেন পাতায়ার নাকলুয়াতে অবস্থিত- বাংলামং হাসপাতালে। আপনি যদি থাই বা ইংলিশ ভাষা পারেন তাহলে ভাল। আর না পারলে পরিচিত কোন থাই নাগরিকের কাছ থেকে থাই বা ইংলিশ ভাষায় পেপার করে আপনার শারীরিক সমস্যাগুলো লিখে নিবেন, তাহলে ডাক্তার দেখাতে অনেকটা সুবিধা হবে।

এরপর হাসপাতালে প্রবেশ করে আপনার পাসপোর্ট কপি ও আপনার রোগের কথা বলবেন অথবা (থাই-ইংলিশ ভাষায় রোগের নাম লেখা পেপারটা দিবেন)। তারপর তারা আপনার নামে হাসপাতালের একটি কার্ড করে দিবে ফ্রীতে।

কাউন্টার থেকে বলে দিবে আপনাকে কোন রুমে যেতে হবে, সেখানে চলে যাবেন, সেখানে থাকা নার্স আপনার শরীরের তাপমাত্রা ও প্রেসার মাপবে সেটাও ফ্রী।

তারপর তারা আপনার রোগের বিষয় জানতে চাইবে সেটা বলবেন। তখন তারা আপনার রোগ বিশেষজ্ঞের সিরিয়াল দিয়ে দিবে। আর আপনি আপনার হাসপাতাল থেকে দেয়া কার্ড ও সিরিয়ালের টোকেন নিয়ে অপেক্ষা করবেন ডাক্তারের জন্য।

যখন আপনার সিরিয়াল আসবে তখন আপনি ডাক্তারের রুমে প্রবেশ করবেন এবং আপনার সমস্যাগুলো ডাক্তারকে বলবেন, যদি কোন পরীক্ষা নিরীক্ষা দরকার হয় তাহলে ডাক্তার বলবে, আর না হলে ঔষধ লিখে দিবে।
ডাক্তার রুমের পাশেই আছে হাসপাতালের ফার্মেসি সেখান থেকে আপনাকে নামমাত্র মূল্য দেয়া হবে ঔষধ।
এবং কিভাবে ঔষধ সেবন করবেন তাহার নিয়ম।

যদি আপনার বড় কোন ধরনের শারীরিক সমস্যা না থাকে তাহলে তারা ডাক্তার ও মেডিকেল ফি বাবদ ২০০ বাত নিবে আর বড় কোন রকম পরীক্ষা নিরীক্ষার প্রয়োজন হলে তাও খুব কম টাকায় করাতে পারবেন।
আর ঔষধের দাম ও খুবই কম হাসপাতালের ভিতর সরকার নির্ধারিত ফার্মাসিতে।

হাসপাতালের আসা সকল রোগীদের খাওয়া দাওয়ার জন্য হাসপাতালের ভিতর আছে ক্যান্টিন, যেগুলোর খাবারের দাম বাহিরের দোকানের চেয়ে কিছুটা কম।

আপনি শুনে অবাক হবেন যে থাই নাগরিকদের জন্য এই হাসপাতালে সকল চিকিৎসা, পরীক্ষা নিরীক্ষা ও ঔষধ মাত্র ৩০ বাত। এটা সত্যি অবাক করা বিষয়।

সুতরাং আপনি চাইলে খুব কম খরচে নিতে পারেন উন্নত চিকিৎসা। সবার সুস্থতা কামনা করছি, ভালো থাকবেন।