২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ | ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

ইঞ্জিন বিকল হবার পর বোয়িং ৭৭৭ বিমানের উড্ডয়ন বন্ধ করেছে ইউনাইটেড এয়ারলাইন্স

আপডেট : ফেব্রুয়ারি ২২, ২০২১ ৮:৩৯ অপরাহ্ণ

8

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

যুক্তরাষ্ট্রের ইউনাইটেড এয়ারলাইন্স বলেছে যে শনিবার তাদের একটি বোয়িং ৭৭৭ বিমানের ইঞ্জিন বিকল হবার কারণে শনিবার থেকে এই মডেলের ২৪টি উড়োজাহাজের উড্ডয়ন বন্ধ রাখা হচ্ছে।

২৩১জন যাত্রী এবং ১০ জন জন ক্রু বহনকারী বিমানটি ডেনভার বিমানবন্দরে ফিরে আসতে বাধ্য হয়। ওই ঘটনায় কেউ হতাহত হওয়ার কোন খবর পাওয়া যায়নি।

বিমানটি থেকে ছিটকে পড়া টুকরো আশেপাশের আবাসিক এলাকায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

এই ঘটনার প্রতিক্রিয়ায় জাপান বলেছে যেসব এয়ারলাইন্স বোয়িং ৭৭৭ উড়োজাহাজে প্র্যাট অ্যান্ড হুইটনি ৪০০০ ইঞ্জিন ব্যবহার করছে, এমন সমস্ত বিমান যেন তাদের আকাশসীমা এড়িয়ে চলে।

বোয়িং বলেছে যে তারা জাপানের সিদ্ধান্তকে সমর্থন করে এবং একই ইঞ্জিন সম্বলিত বোয়িং ৭৭৭ এর সব কার্যক্রম তারা স্থগিত করার সুপারিশ করেছে।

এরমধ্যে ইঞ্জিন ব্যর্থতার ওই ঘটনা খতিয়ে দেখতে তদন্ত চলছে।

নির্মাতা প্রতিষ্ঠান জানিয়েছে যে বর্তমানে এই ইঞ্জিনটিসহ বিশ্বব্যাপী ৬৯ টি বোয়িং ৭৭৭ সেবায় রয়েছে।

বিমানটির টুকরোগুলো শহরের নানা জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।
ছবির ক্যাপশান, বিমানটির টুকরোগুলো শহরের নানা জায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে।

যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় বিমান প্রশাসন বা ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফএএ) এর মতে, ইউনাইটেড হল আমেরিকার একমাত্র বিমান সংস্থা যারা এ জাতীয় বিমান চালাচ্ছে।

এর বাইরে জাপান এবং দক্ষিণ কোরিয়া এ ধরণের বিমান চালিয়ে থাকে।

এফএএ জানিয়েছে, হনলুলুর উদ্দেশ্যে যাত্রা করা ইউনাইটেড ফ্লাইট ৩২৮ এর ডান দিকের ইঞ্জিনটি বিকল হয়ে যায়।

এ ঘটনার পরে সংস্থাটি প্র্যাট অ্যান্ড হুইটনি ৪০০০ ইঞ্জিন সংযুক্ত বোয়িং ৭৭৭ বিমানগুলো বিশেষভাবে খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছে।

এফএএ-এর প্রশাসক স্টিভ ডিকসন এক বিবৃতিতে বলেছেন, “আমরা গতকালের ঘটনার পরে নিরাপত্তা সংক্রান্ত সমস্ত তথ্য পর্যালোচনা করেছি।”

“প্রাথমিক তথ্যের ভিত্তিতে, আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে, এই মডেলের ইঞ্জিনে যে বিশেষ ধরণের ফাঁপা ফ্যান ব্যবহার করা হয় সেগুলোর ব্লেড পরীক্ষা নিরীক্ষা আগের চাইতে বাড়াতে হবে। কারণ এই ফ্যান শুধুমাত্র বোয়িং ৭৭৭ বিমানে ব্যবহৃত হয়।”

এফএএ এবার ওই ইঞ্জিন প্রতিষ্ঠান এবং বোয়িংয়ের প্রতিনিধিদের সাথে দেখা করবে।

জাতীয় পরিবহন সুরক্ষা বোর্ডের প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা গেছে বেশিরভাগ ক্ষতি হয়েছে ডানদিকের ইঞ্জিনে, যেখানে দুটি ফ্যানের ব্লেড ফেটে গেছে এবং অন্যান্য ব্লেডগুলোও এর কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিমানের মূল কাঠামোয় বড় ধরণের কোন ক্ষতি হয়নি। যা হয়েছে, সেটা সামান্য বলা যায়।

২০শে ফেব্রুয়ারী, ডেনভার থেকে টেক অফের সময় বোয়িং ৭৭৭ বিমানের ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়।
ছবির ক্যাপশান, ২০শে ফেব্রুয়ারী, ডেনভার থেকে টেক অফের সময় বোয়িং ৭৭৭ বিমানের ইঞ্জিন বিকল হয়ে যায়।

‘ভয়াবহ কাঁপুনি’

ফ্লাইটে থাকা যাত্রীরা জানান, টেক-অফের কিছুক্ষণ পরেই তারা একটি “বড় বিস্ফোরণ” এর শব্দ পান।

ডেভিড ডেলুসিয়া বলেন, “বিমানটি ভয়াবহভাবে কাঁপতে শুরু করে, এবং বিমানটির উচ্চতা খুব দ্রুত পড়তে থাকে। ধাই ধাই করে নীচে নামতে শুরু করি,”

তিনি আরও বলেন যে, তিনি এবং তাঁর স্ত্রী তাদের পকেটে তাদের মানিব্যাগ রেখেছিলেন যাতে “আমাদের যদি কিছু হয়ে যায় তাহলে আমাদের পরিচয় যেন শনাক্ত করা যায়।”

ব্রুমফিল্ড শহরের পুলিশ একটি ছবি পোস্ট করে যেখানে একটি বাড়ির সামনের বাগানে একটি ইঞ্জিনের সামনের অংশটি দেখা যায়।

ফুটবলের মাঠসহ শহরটির আশেপাশে ইঞ্জিনের অন্যান্য অংশ ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ে থাকতে দেখা গেছে।

বিমান থেকে পড়ে থাকা ধ্বংসাবশেষে কেউ আহত হয়নি।

জাপান বলেছে, প্র্যাট অ্যান্ড হুইটনি ৪০০০ মডেলের ইঞ্জিন সম্বলিত বোয়িং ৭৭৭ এর সব বিমান যেন পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত তাদের আকাশসীমা এড়িয়ে যায়। অর্থাৎ এই বিমানগুলো যেন তাদের সীমার মধ্যে টেক অফস, ল্যান্ডিং না করে কিংবা উড়ে না যায়।

দেশটির সরকার সরকার জেএএল এবং এএনএ এয়ারলাইন্সকে বোয়িং ৭৭৭ এর মধ্যে প্র্যাট এবং হুইটনি ৪০০০ মডেলের ইঞ্জিন ব্যবহার স্থগিত করার নির্দেশ দিয়েছে।

গত ডিসেম্বরে বাম ইঞ্জিনের ত্রুটির কারণে একটি জেএএল বিমান নাহা বিমানবন্দরে ফিরে আসতে বাধ্য হয় – এই বিমান এবং শনিবার দুর্ঘটনার কবলে পড়া বিমান-এই দুটির বয়স ২৬ বছর।

ঘটনা থেকে বিমানটি ২ বছর বয়সী ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সের বিমানের সমবয়সী।

২০১৮ সালে, ইউনাইটেড এয়ারলাইন্সের বিমানের ডান দিকের ইঞ্জিনটি হনোলুলুতে নামার কিছুক্ষণ আগেই ভেঙে পড়ে।

তদন্তের পরে, জাতীয় পরিবহন সুরক্ষা বোর্ড জানিয়েছে যে ফ্যান ব্লেডের পুরোটায় ফাটলের কারণে এই ঘটনাটি ঘটেছে।

সূত্র: বিবিসি বাংলা




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *