২৯শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৩ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আকাশে ভিনগ্রহী! ‘আয়রন ম্যান’ বেলুন নিয়ে হুলস্থুল যোগীর রাজ্যে

আপডেট : অক্টোবর ১৮, ২০২০ ৩:৫৫ অপরাহ্ণ

15

ভয়েস বাংলা ডেস্ক

দিনের আলোয় আকাশে তাণ্ডব ‘ভিনগ্রহী’-র। আতঙ্কে ঘরবন্দি হয়ে রইলেন শহরবাসী। একের পর এক অপরাধমূলক ঘটনার জেরে গত কয়েক মাসে একাধিক বার খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে উত্তরপ্রদেশ, যা দেখে শিউরে উঠেছে গোটা দেশ। ভিনগ্রহ থেকে হামলা ধেয়ে আসতে পারে ভেবে সেখানকার মানুষকেই এ বার ভয়ে সিঁটিয়ে থাকতে দেখা গেল।

গ্রেটার নয়ডার দনকৌর এলাকায় শনিবার এই ঘটনা ঘটেছে। ভিনগ্রহী ভেবে যার ভয়ে এলাকাবাসী সিঁটিয়ে ছিলেন, সেটি আসলে মার্ভেল কমিকসের জনপ্রিয় চরিত্র ‘আয়রন ম্যান’-এর আদলে তৈরি একটি গ্যাস বেলুন। প্রায় মানুষের সমান আকারের, রোবটের মতো দেখতে ওই বেলুনটিকে আকাশে উড়তে দেখেই ভয় পেয়ে যান এলাকাবাসী। ভেবে বসেন, ভিনগ্রহের কোনও প্রাণী বোধ হয় তাঁদের উপর আক্রমণ চালাতে এসেছে। পুলিশের হস্তক্ষেপে শেষমেশ ভয় কাটে তাঁদের।

সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে জানা গিয়েছে, শনিবার সকালে আচমকাই আকাশে ওই বেলুনটিকে উড়তে দেখেন এলাকাবাসী। ‘আয়রন ম্যান’-এর আদলে তৈরি বেলুনটিকে রোবটের মতো দেখতে লাগছিল। তাতেই বেলুনটিকে ভিনগ্রহী ভেবে বসেন তাঁরা। যে কোনও মুহূর্তে হামলা ধেয়ে আসতে পারে ভেবে নিজেদের ঘরবন্দিও করে নেন অনেকে।

রোবটের মতো দেখতে এই বেলুনটি উদ্ধার হয়েছে।

গ্যাস ফুরিয়ে যাওয়ায় বেশ কিছু ক্ষণ পর বেলুনটি উড়তে উড়তে ভট্টা পারসৌল এলাকায় একটি খালের পাশের ঝোপে গিয়ে পড়ে। কী হয় দেখতে সেখানে ভিড় জমান উৎসুক মানুষ। কিন্তু রোবট আকারের বেলুনটি এমন ভাবে পড়েছিল, যাতে পায়ের অংশটি খালের জল ছুঁয়ে ছিল। যার ফলে স্রোতের ধাক্কা লাগলেই বেলুনটি কেঁপে উঠছিল। কিন্তু তাতে আরও ভয় পেয়ে যান সকলে। সঙ্গে সঙ্গে পুলিশে খবর দেওয়া হয়। তারাই এসে সত্য উদঘাটন করে।

দনকৌরের পুলিশ আধিকারিক অনিলকুমার পান্ডে বলেন, ‘‘আয়রন ম্যানের আদলে তৈরি গ্যাস বেলুনটিকে রোবটের মতো দেখাচ্ছিল। তাতেই ভয় পেয়ে যান এলাকাবাসী। এমন দৃশ্য যেহেতু সচরাচর দেখা যায় না, বেলুনটিকে ভিনগ্রহী ভেবে বসেন তাঁরা। ভয় চেপে বসে মনে।’’ গ্যাস ফুরিয়ে যাওয়াতেই বেলুনটি মাটিতে নেমে আসে বলেও জানান তিনি। বেলুন ওড়ানো যদিও অপরাধের আওতায় পড়ে না, কিন্তু অদ্ভূত দেখতে বেলুনটি কোথা থেকে ওড়ানো হয়েছিল, তা জানার চেষ্টা চলছে বলে জানান তিনি। 

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা




Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *